ঢাকা      বৃহস্পতিবার ১৫, নভেম্বর ২০১৮ - ১, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. নুসুর আক্তার

মেডিকেল অফিসার 


প্রসবজনিত ফিস্টুলা প্রতিরোধে সচেতনতা

একটা অস্বাভাবিক পথ তৈরি হয় সন্তান প্রসবের জায়গাটুকুর সাথে প্রস্রাবের রাস্তার কিংবা পায়খানার রাস্তার কিংবা দুটোই। প্রথমটিই বেশি হয়। ফলে সন্তান প্রসবের পথ দিয়ে প্রস্রাব বা পায়খানা ঝরতে থাকে সারাক্ষণ! কেমন এম্বেরেসিং একটা ব্যাপার চিন্তা করুন একবার। সেই মায়েদের শরীর থেকে সারাক্ষণই প্রস্রাবের গন্ধ আসতে থাকে।

কেউ তাদের সাথে থাকতে চায় না, মিশতে চায় না, মোটামুটি একঘরে জীবন যাপন। স্বামী পরিত্যাক্তা! লোকলজ্জার ভয়ে চিকিৎসা নিতেও যেতে চায় না আবার অনেকে জানেই না যে এটার সুন্দর চিকিৎসা ব্যাবস্থা রয়েছে এবং সঠিকভাবে চিকিৎসা করলে প্রায় ৮০ ভাগ পর্যন্ত রোগী পুরোপুরি ভাল হয়ে যায়।

প্রসবজনিত ফিস্টুলার কারণ:
- অপরিকল্পিত ডেলিভারি
- বাড়িতে দাই দিয়ে আনাড়ি হাতের ডেলিভারি
- প্রসব বেদনা ওঠার পর সময়মত হাসপাতালে না নিয়ে যাওয়া, এগুলোই অবসটেট্রিক ফিস্টুলা কিংবা প্রসবজনিত ফিস্টুলার কারণ।

ফিস্টুলার কারণে কী হয়? 
- বাচ্চার মাথা এসে বার্থ ক্যানেলে আটকে যায়
- মাথার সামনে থাকে ব্লাডার, ব্লাডারের সামনে থাকে সিমফাইসিস পিউবিস (দুটো হাড়, পিউবিক বোনস এখানে জয়েন করেছে)। তখন ব্লাডারের অবস্থা হয় পুরাই স্যান্ডউইচের মতন!
- লম্বা সময় এরকম প্রেসারে থাকার কারণে ব্লাডারের রক্তচলাচল বন্ধ হয়ে ওই জায়গার অক্সিজেন সাপ্লাইও অকেজো হয়ে যায়। ইনফেকশন হয়ে এই টিস্যুগুলো আর সার্ভাইভ করতে না পেরে খসে পড়ে যায় তারপরই এ ধরনের ফিস্টুলা তৈরি হয়। বাচ্চা গুলোও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মারা যায় অক্সিজেনের অভাবে। 

এইতো গেল রোগীর অজ্ঞানতা অসচেতনতার ফল! কিন্তু শুধুমাত্র যে ডেলিভারির সময়ই ফিস্টুলা হয় তা না, অন্য আরও অনেক কারণেও ফিস্টুলা তৈরি হতে পারে।

অপারেশন ঘটিত কারণে: সিজার করার সময় ব্লাডারকে ইউটেরাস ভেবে ব্লাডারে পোচ দিয়ে দিলে কিংবা ক্লোজিংয়ের সময় ব্লাডারের কিছু অংশসহ সেলাই করে দিলে।

ইউটেরাসের অন্যান্য অপারেশনের সময়: কারণ ইউটেরাসের ঠিক সামনেই ব্লাডার, তাই সবসময়ই দক্ষ গাইনোকোলজিস্ট দিয়ে অপারেশন করানো উচিত। 

এছাড়া দুর্ঘটনার কারণে, ধারাল কোন কিছুর উপর পড়ে গেলে, ক্রিমিনাল এবোরশনের কারণেও ফিস্টুলা হতে পারে। এছাড়া জেনিটাল এরিয়াতে ইনফেকশন হয়েও হতে পারে।

আফ্রিকা, নাইজেরিয়া এবং এশিয়ার কিছু কিছু জায়গায় ছেলেদের মত মেয়েদের ও circumcision করা হয়, ধর্মীয় বিশ্বাস থেকে। এটাকে বলে gishiri /female circumcision, clitoriodotomy. এ ধরনের কাজগুলো করার সময়ও খুব সহজেই ব্লাডার ইনজুরি হয়ে ফিস্টুলা ডেভলপ করে।

সচেতনতা বাড়াতে আমরা সবাই এগিয়ে আসি যেন এ প্রজন্মেই ফিস্টুলার হয় অবসান।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আলেকজান্ডার ডিজিজ

আলেকজান্ডার ডিজিজ

খুব বিরল এক অসুখ। সারা পৃথিবীতে মাত্র ৫০০ এর মত রোগী পাওয়া…

ডোনারিজম ও স্যারোগেসি

ডোনারিজম ও স্যারোগেসি

A child must born in the private darkness of fallopian tube after…

থ্যালাসেমিয়ার বাহক কারা?

থ্যালাসেমিয়ার বাহক কারা?

দেশে ১০% মানুষ থ্যালাসেমিয়ার বাহক হলেও কেন আমরা এখনও সচেতন হইনি? এর…

সিজারিয়ান কতটা জরুরি?

সিজারিয়ান কতটা জরুরি?

‘মা' ডাকটির জন্য একজন নারীকে অসহ্য প্রসবকালীন যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়৷ আগে…

মিডলইস্ট সিন্ড্রোম 

মিডলইস্ট সিন্ড্রোম 

বুক ধড়ফড় করে। ঘুমাতে পারি না। হার্ট দ্রুত চলে। মাঝে মাঝে মনে…

এটি কী রোগ না বিবেক?

এটি কী রোগ না বিবেক?

মিঠু, বয়স- ২৮। ৩ বছর ধরে সমস্যায় ভুগছেন। তার ভাষ্য মতে, অনেক…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর