ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ১ ঘন্টা আগে
ডা. ফাহিম উদ্দিন

ডা. ফাহিম উদ্দিন

ইন্টার্ন চিকিৎসক

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১১:৪১

মানুষের জীবন ফিরিয়ে দেয়ার ক্ষমতা যদি আল্লাহ ডাক্তারকে দিতো! 

মানুষের জীবন ফিরিয়ে দেয়ার ক্ষমতা যদি আল্লাহ ডাক্তারকে দিতো! 

এই পর্যন্ত অনেকগুলো ডেথ ডিক্লেয়ার করতে হয়েছে কিন্তু আজকের ডেথ ডিক্লেয়ার করার পর খুব খারাপ লাগছে। suspected DKA with CKD with IHD with H/O PTCA এর রোগী। আরেক জনের নাইট ডিউটি। এমনি এসেছিলাম পোস্ট এডমিশনে তাকে একটু সাপোর্ট দিতে। 

সিনিয়র ডাক্তার রাউন্ডে এসে রোগীর অবস্থা আর রিপোর্ট অনুযায়ী অর্ডার পরিবর্তন করে দিতে বলেছেন। সেই অনুযায়ী অর্ডার পরিবর্তন করে নতুন অর্ডার দিয়েছি। 

রোগী এমনিতেই ক্রিটিক্যাল ছিল। ক্রিয়েটিনিন ৬.৩। রোগীর কোনো ছেলে নেই। সাথে পুরুষ অভিভাবক বলতেও তেমন কাউকে দেখলাম না (কী যেনো পারিবারিক সমস্যা!)। উনার স্ত্রী আর তিন মেয়ে। দেখে সম্ভ্রান্ত পরিবারেরই মনে হল। অনেক ভদ্র, শিক্ষিত। রাতের বেলা ওষুধ আনার মত পুরুষ কেউ নেই, তাই হয়ত নতুন অর্ডারটা কাল সকাল থেকে শুরু করতে চেয়েছিল। কিন্তু রোগীর ভালোর জন্যই সিনিয়রের পরামর্শ মোতাবেক রাত থেকেই শুরু করতে বললাম। 

ঘন্টা খানেক আগে রোগী হঠাৎ এক্সপায়ার করলো। মৃত্যুর খবর পেয়ে বাসা থেকে এসেই রোগীর এক মেয়ে আমার পা ধরে বসে পড়লো, তাঁর বাবাকে যেনো একটু বাঁচিয়ে দেই। মেয়েটার বয়স আমার কাছাকাছি হবে। বাবার প্রতি মেয়েদের আলাদা একটা টান থাকে। তার উপর এই বয়সেই বাবাকে হারিয়ে অভিভাবকহীন হয়ে পড়বে তা হয়ত ভাবেনি কখনো। মেয়েটার আবদারের কী উত্তর দিবো বা কী বলে সান্ত্বনা দিবো বুঝতে পারছিলাম না! মাঝে মাঝে মনে হয়, কিছু মানুষের জীবন ফিরিয়ে দেয়ার ক্ষমতাটা যদি আল্লাহ ডাক্তারদেরকে দিতো! 

দিনের শুরুতেই একজনের ডেথ ডিক্লেয়ার করতে হয়েছে। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগেও আরেক জনের ডেথ ডিক্লেয়ার করতে হল। ডাক্তারি পেশায় আসার পেছনে অন্যতম একটা কারণ ছিল, চোখের সামনে মানুষের মৃত্যু দেখতে দেখতে নিজের মাঝে সবসময় মৃত্যুভয় থাকবে। কিন্তু বাস্তবে আসলে তা নয়। 

ডেথ ডিক্লেয়ার করতে করতে মৃত্যু বিষয়টা এখন আর কিছুই মনে হয় না। কিন্তু তারপরেও মানুষ হিসেবে মানুষের প্রতি একটা খারাপ লাগা সব সময়ই কাজ করে এবং করবে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত