ঢাকা      রবিবার ২১, অক্টোবর ২০১৮ - ৫, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. ফাহমিদা শিরীন নীলা

এমবিবিএস, এফসিপিএস (গাইনী)

ফিগো ফেলো (ইতালি)

গাইনী কনসালট্যান্ট, বগুড়া।


‘ডাক্তারি করব্যার তো লয়, ব্যবসা করব্যার বসিছে এরা’

চলে যাচ্ছেন ক্যান? ম্যাডামের ভিজিট দিয়ে যান!
- ক্যা? আগের বার না ভিজিট দিয়্যে দেকানু। আবার ভিজিট দিমু ক্যা?
- আগের বার চিকিৎসা নিয়ে যেয়ে ওষুধ খাইছেন তো! এবার ম্যাডাম আবার আপনাকে দেখল না? আবার ওষুধ লেখে দিল না?
- ম্যাডামই তো হামাক ডাকিছিল দুই সপ্তা পর। তাই আসিছি। তাল্যে একন ভিজিট দিমু ক্যা?
- আপনাক ম্যাডাম কি দাওয়াত খাওয়ানোর জন্য ডাকিছিল?
- খারাপ কতা ক্যন কিষক? খারাপ কতা কিষক ক্যন?
- খারাপ ভাবে না বললে তো আপনি কথা শুনছেন না! আপনাকে আগের বার বলে দেয়া হল না, দুই সপ্তাহ পরে আবার দেখাতে আসতে হবে?

কছ্যেনই তো! হামি তো আগের বার ট্যাকা দিয়্যাই দেকাছি। হামি কচ্চি যে, এবার ম্যাডাম হামাক এমনিই দেকপ্যার ডাকিছে। আগের বার ট্যাকা দেইনি হামি?
- দিছ্যেন তো! আগের বার দেকানার ভিজিট দিছ্যেন। এবার দেখল না ম্যাডাম? এটার ভিজিট দিতে হবে না?
- হামি তো আগের বারের ওষদ খায়্যে এনা আরামই পাছি। হামি আসনুই না হিনি। খালি ম্যাডাম ডাকিছে তাই গাড়ি ভাড়া খরচ কর‍্যা আচ্চি।
- আগের ওষুধের ডোজ শেষ হয়ে যায়নি? একটু আরাম পাছেন, ওই জন্য আর ভিজিট দিবেন না, তাই না? যান, আপনার প্রেসক্রিপশনই দিব না। আগের ওষুধই খান, যান। 
- আপনেরা এত্ত খারাপ কিষক? মাইনষের সেবা করব্যার বচ্চেন, আর সেবা বাদ দিয়্যা ইঙ্কা ব্যবসা করা শুরু করিছেন, লয়?
- এত কথা বলেন ক্যান? দেন, ভিজিট দেন, দিয়ে প্রেসক্রিপশন নিয়ে যান।
- হ, থোন আপনের প্রেসক্রিপশন আপনেই থোন। হামার আর লাগপি লয়।

১০ মিনিট পর...
- ও আপা, হামি কচ্চি কি, হামার কাচে তো ট্যাকাই নাই। ভিজিট দেয়াই পারমু না। এই দেকেন খালি গাড়ি ভাড়া আচে। সত্যি আপা।
- না থাকলে পরে এসে টাকা দিয়ে প্রেসক্রিপশন নিয়ে যাবেন।
- সত্যি কচ্চি আপা। এই দেকেন বিশ ট্যাকা আচে। গাড়ি ভাড়াই লাগপি এডা। দেন আপা, সামনের বার আস্যে ট্যাকা এনা বেশি কর‍্যে ধর‍্যে দিমু হিনি।
- না, না। পরে টাকা দিয়ে নিয়ে যাবেন প্রেসক্রিপশন।
- আচ্ছা, এই ল্যান ১০০ ট্যাকা। আর নাই আপা, বিশ্বাস করেন। এডাই ব্যাগ হাতড়ে পানু।
- আচ্ছা ঠিক আছে, ভিজিট ১০০ টাকা কম দেন।
- নাই আপা। ল্যান আপা, এই ১০০ ট্যাকাই ল্যান।
- না, না, হবে না।
- আচ্ছা ল্যান, এই ক'টা ট্যাকাই ছিল। আপনের কতাই থ্যাকল। মারে রা মা! এটি আস্যে এক্কেরে ব্যবসা খুল্যা বসিছে। এই চল তাড়াতাড়ি, নিউমার্কেট ব্যান বন্দ হয়্যাই গেল এটি এগেরে সাতে ক্যাঁচাল করতি করতি। ডাক্তারি করব্যার তো লয়, ব্যবসা করব্যার বসিছে এরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

মেইড ইন চায়না এখন শুধু জিনিসপত্রেই সীমাবদ্ধ নেই। শুরু হয়েছে হিউম্যান রিসোর্স…

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

প্রমিতি, বয়স- ১৬। এইচএসসি ১ম বর্ষে পড়ে। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল প্রজাপতির মতো। যখন কথা…

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

তখন আমি সিওমেক হাসপাতালের ইন্টার্ন। মেডিসিন ওয়ার্ডে রাউন্ড দিচ্ছেন প্রফেসর ইসমাইল পাটোয়ারি…

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ফাঁকিবাজির মহান ব্রত নিয়ে ইন্টার্নি শুরু করেছিলাম। আমি জন্মগত ভাবেই ফাঁকিবাজ। সবাই…

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

এক সদ্য গর্ভবতী রোগীকে কাঁচা পেঁপে খেতে নিষেধ করলাম। - আনারস আর কাঁচা…

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

ডাক্তার- আপনার সমস্যা কী? রোগী- বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে। ডাক্তার-…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর