ঢাকা      বুধবার ১২, ডিসেম্বর ২০১৮ - ২৮, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী

আগামীতে মেডিকেলে ভর্তিচ্ছুদের জন্য মেধা তালিকায় দ্বিতীয় আইরিনের পরামর্শ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট: এ বছর মেডিকেল ভর্তি (এমবিবিএস প্রথম বর্ষ) পরীক্ষায় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন উম্মে শেফা আইরিন। এবারের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় তার টেস্ট স্কোর- ৮৫.৭৫।  তার বাবার নাম শাহ মোহাম্মদ ইদ্রিস ও মা নূর নাহার বেগম। তিনি চট্টগ্রাম গভর্নমেন্ট গার্লস হাইস্কুল থেকে এসএসসি ও চট্টগ্রাম কলেজ থেকে জিপিএ ৫ পেয়ে এইচএসসি পাস করেন।

মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষায় অসাধারণ ফলাফলের প্রতিক্রিয়ায় উম্মে শেফা আইরিন বলেন, আমি আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি। আমার মা-বাবার দোয়া  ও আল্লাহর অশেষ রহমতের কারণেই এ ফলাফল অর্জন হয়েছে। এছাড়াও কোচিং সেন্টারের গাইডলাইনগুলোও আমার ভালো রেজাল্ট করতে সহায়তা করেছে। 

এইচএসসি পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা

আগামীতে যারা মেডিকেল ভর্তি হতে চান তাদের প্রতি ঢাকা মেডিকেল কলেজের নবীন ছাত্রী উম্মে শেফা আইরিন বলেন,  আপাতত এইচএসসি পরীক্ষাটা ভালো করার জন্য যা কিছু করার সবকিছু করতে হবে। কারণ, এইচএসসি পরীক্ষায় এ প্লাসটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এ বিষয়ে উদাহরণ টেনে উম্মে শেফা আইরিন বলেন, আমার একটা ফ্রেন্ড ছিল। আমার ব্যাচেই ছিল। প্রথম দিকে সে খুবই ভালো করতো। কখনও সে ফার্স্ট হতো আর কখনও আমি ফার্স্ট হতাম। আমাদের দুই জনের মধ্যেই ফার্স্ট-সেকেন্ড হতাম। আমাদের দুইজনের মধ্যে খুবই কম্পিটিশন ছিল। পরে রেজাল্টে দেখা গেল ওর ৪.৫৯ আসলো। অর্থাৎ, তার ২১ নাম্বারের মতো কাটা গেছে। তবে গোল্ডেন পাওয়া ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের জন্য দরকার আছে কিন্তু মেডিকেলের জন্য অতটা দরকার নেই।  

মেডিকেলে দ্বিতীয় স্থান অর্জনের আইরিনকে  ফুলেল শুভেচ্ছা জানাতে আসেন বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ

পাঠ্যবই সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখা

আর এইচএসসি বইটা সম্পর্কে ভালো আইডিয়া থাকলে পরে তেমন একটা সমস্যা হবে না। আমার সবচেয়ে বড় সুবিধা ছিল যে, আমার ৬টা বই সম্পর্কে ভালো আইডিয়া ছিল। আমি কোশ্চেন দেখেই বলতে পারতাম এটা ওই পেজ থেকে এসেছে, ওই প্যারা থেকে এসেছে। বই সম্পর্কে আমার খুব ভালো ধারণা ছিল।

তবে আমার টেনশন ছিল-ইংরেজি ও জিকে (সাধারণ জ্ঞান) নিয়ে। কিন্তু প্রশ্ন নিয়ে নিজের কাছেই অবাক হচ্ছিলাম এতকিছু পারছি কেমন করে?

ভর্তি পরীক্ষায় মেধাক্রমে শীর্ষে যারা

এ বছর এমবিবিএস প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন ইশমাম সাকীব অর্ণব। তার টেস্ট স্কোর ৮৭.০০। তার গ্রামের বাড়ি খুলনার ফায়ার ব্রিগেড রোড এলাকায়। 

জাতীয় মেধায় ১ম হওয়া এ মেধাবী তরুণ খুলনার সেন্ট জোসেফ স্কুল থেকে এসএসসি ও এম এম সিটি কলেজ থেকে এইচএসএসসি কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হন।

আরও পড়ুন-

►মেডিকেলে ভর্তিচ্ছুদের প্রতি মেধা তালিকায় দ্বিতীয় আইরিনের কথা

►মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় প্রথম খুলনার ইশমাম সাকীব অর্ণব

►মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় মাইনাস ১৮!

►এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী ডা. সানসিলা

সংসদ নির্বাচনে সর্বকনিষ্ঠ প্রার্থী ডা. সানসিলা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সবচেয়ে কনিষ্ঠ প্রার্থী হিসেবে বিএনপির মনোনীত ধানের…

এক বছর মেয়াদী অনারারি ট্রেনিংয়ের জন্য দরখাস্ত আহবান

এক বছর মেয়াদী অনারারি ট্রেনিংয়ের জন্য দরখাস্ত আহবান

মাতৃসদন ও শিশু স্বাস্থ্য প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানে অবস অ্যান্ড গাইনী ও শিশু বিভাগে…

বিদেশী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের জন্য নীতিমালা

বিদেশী বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের জন্য নীতিমালা

যথাযথ অনুমোদন না নিয়ে বাংলাদেশে দীর্ঘদিন অবস্থান করে চিকিৎসা পেশায় নিয়োজিত রয়েছেন…

হবু চিকিৎসকের পাশে দাড়ালেন চিকিৎসকরা

হবু চিকিৎসকের পাশে দাড়ালেন চিকিৎসকরা

মেডিভয়েস রিপোর্ট: সিরাজগঞ্জের বেলকুচির প্রত্যন্ত অঞ্চলের ছেলে আরিফুল ইসলাম। বাবা একজন চা…

বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ পেলেন অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল

বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ পেলেন অধ্যাপক ডা. সামন্ত লাল

দেশের চিকিৎসাসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখার জন্য বাংলা একাডেমি সম্মানসূচক ফেলোশিপ ২০১৮ পেয়েছেন…

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজারে ১৭ জন শিশু অটিজমে আক্রান্ত

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজারে ১৭ জন শিশু অটিজমে আক্রান্ত

বাংলাদেশে প্রতি ১০ হাজার শিশুর মধ্যে গড়ে ১৭ জন অটিজমে আক্রান্ত। এ…

আরো সংবাদ














জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর