ডা. জোবায়ের আহমেদ

ডা. জোবায়ের আহমেদ

নির্বাহী পরিচালক ডা. জোবায়ের মেডিকেয়ার এন্ড প্যাথলজি সেন্টার। 


০৪ অক্টোবর, ২০১৮ ১০:৩৩ এএম

জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেটে নারীর যত ঝুঁকি

জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেটে নারীর যত ঝুঁকি

রাত দশটা। চেম্বার থেকে মাত্র বাসায় ফিরলাম। ডা. নাবিলা কুমিল্লায় থাকলে বাসায় ফেরার তাড়া থাকে না। আমার এক বান্ধবী আমাকে ম্যাসেঞ্জারে নক দিয়েছে। হায়, বন্ধু আমি ০১/০৩। তোমাকে একটু বিরক্ত করব? একটা জিনিস জানার ছিল। আমাদের বন্ধু মোহিত রহমান চৌধুরী এসএসসি ২০০১/ এইসএসসি ২০০৩ নামে একটা গ্রুপ খুলে যেখানে সারাদেশের অর্ধ লাখ বন্ধু আজ মেতেছে প্রাণের বন্ধনে।

আমি বললাম, তুমি চাইলেও আমাকে বিরক্ত করতে পারবে না। আমি বিরক্ত হই না। বন্ধুরা বিরক্ত করে না। বল কী বলবে? সে তার একটা উইশ জানালো।
- বলল, আমার ওজন ৪২ কেজি মাত্র, আমার একটা বেবি আছে, আমি একটু মোটা হতে চাই? মোটা হওয়া তার উইশ।
- আমি বললাম, হাউ সুইট।
- সে সিরিয়াসলি বলল, ভাই আমি মোটা হতে চাই।
- আমি মজা করে বললাম, কেমন মোটা? হাতি হতে চাও?
- সে বলল, ৫ কেজি। 
- আমি জানতে চাইলাম কেন মোটা হতে চাও? তোমার জামাইয়ের কি মোটা বউ পছন্দ?

সে যে কারণগুলো বলল-
১. তার ফ্যামিলির সবাই মোটা, শুধু সে ছাড়া।
২. তাকে দেখলে মনে হয় কলেজে পড়ে, এক বাচ্চার মা মনে হয় না।
৩. সে একটা বার্গার ফুল খেতে পারে না, রুচি কম।
৪. সবাই তাকে শুধু কথা শুনায়।
৫. সবাই বলে সে না খেয়ে জামাইয়ের টাকা বাঁচায়।
৬. সবাই তাকে কিপটা বলে।
৭. সবাই বলে সে দিন দিন শুটকি হচ্ছে, এক বাচ্চার মা এত শুকনা হলে চলে কী?

আমি বললাম, তুমি চিকন আছো, তুমি বেশি দিন বাঁচবে। এই সুন্দর পৃথিবীতে বেশি জ্যোৎস্না তুমি দেখবে। নীল আকাশে মেঘের ভেসে বেড়ানো বেশিদিন দেখবে। তুমি চাইলেই সমুদ্র স্নানে যেতে পারবে। কিন্তু তার যে মোটা হতে হবেই।

দুই.
বছর ৩ আগের কথা। রাত দুটায় একজন নন ইপিল্যাপ্টিক অ্যাটাকের রোগী আসলেন। চিকিৎসা দিলাম। সকালে ফলোয়াপ করতে গিয়ে দেখলাম সে খুব আপসেট। আমি তার সাথে কথা বললাম, জানতে চাইলাম সে কিছু নিয়ে চিন্তিত কি না?
- সে হঠাৎ কান্না শুরু করল। অশ্রুজল মুছে বলল, স্যার আপনি আমার ধর্মের ভাই। আপনি আমার সংসারটা বাঁচাতে হেল্প করেন।
- আমি বললাম, কেমন হেল্প?
- সে বলল, তার জামাইয়ের মোটা বউ পছন্দ। জামাই বিদেশ থাকে। এক মাস পর দেশে আসবে। গতরাতে ফোন দিয়ে বলেছে, সে যদি এক মাসের মধ্যে মোটা না হয় তাহলে সে দেশে এসে আরেকটা বিয়ে করবে।
- আমি একথা শুনে চুপ মেরে গেলাম। ভাই যখন ডেকেছে, তাকে সাহস দিলাম। বুঝালাম মোটা হবার কোন মেডিসিন নেই। ওষুধ খেয়ে মোটা হলে এই জামাইয়ের ঘর করার চেয়েও জীবন দুর্বিষহ হয়ে যাবে। ডায়াবেটিস, হাই প্রেসার, কুশিং সিন্ড্রোম, অস্টিওপরোসিস, ইনফার্টাইলিটি, ড্রিপ্রেশান, আর্থাইটিস, স্ট্রোকসহ নানা রোগকে মেনে নিতে হবে।

আর এসব রোগ হবার পরে জামাই কি সেই মোটা বউকে পছন্দ করবে? সে এবার চুপ করে থাকল। আমি বারংবার সর্তক করে বললাম, সংসার যদি নাও টিকে তবু তথাকথিত ফার্মেসির ডাক্তারদের কাছ থেকে যেন মোটা হবার মেডিসিন না খায়। এই ধর্মের বোনের সংসারটা টিকছে কিনা সে খবর আর পাইনি। এমন সংসার করে লাভই বা কি। পোকা মাকড়ের সংসার।

তিন.
আমাদের এক বন্ধু ছিল হাফিজ। কবিতা লিখত। আমি তাকে পুড়ে যাওয়া কবি বলে ক্ষেপাতাম। সে এক মেয়ের প্রেমে পড়ে গেল। কঠিন প্রেম। এক তরফা প্রেম। মেয়ে তাকে পাত্তা দিত না তেমন। মাঝে মধ্যে মন নরম হলে বলত কবিতা শুনান। 

হাফিজ একদিন বিড়বিড় করছে। আমি বললাম, কি পড়স। 
- সে বলল, যখন রাত আসে তখন ঘুম আসে। যখন ঘুম আসে তখন স্বপ্ন আসে। যখন স্বপ্ন আসে তখন তুমি আসো। যখন তুমি আসো তখন ঘুমও আসে না, স্বপ্নও আসে না। এটা সে রিহার্সাল দিচ্ছে, তার জিএফকে শুনাবে।

মেয়েরা নাকি কবিদের প্রেমে পড়ে। কবিতা গভীর প্রেমের অণুঘটক। সেই মেয়ে এখন হাফিজের বউ হল। দুই বাচ্চার মা। দুইটা সিজারিয়ান সেকশন। একদিন হাফিজ আমাকে ফোন দিয়ে বলে, তার বউ নাকি হাতি (অনেক মোটা) হয়ে গেছে। সারাদিন খিটমিট করে, মাথা ব্যথা লেগেই থাকে। কেমন নাকি মন মরা হয়ে থাকে। মুখে অনেক ব্রণ। প্রায় রাতেই নাকি পায়ে খুব কামড়ানো ব্যথা হয়।

আমি জিজ্ঞেস করলাম পিল খাওয়াছ নাকি। সে হাসি দিয়ে বলে, কাশ ফুলের নরম ছোঁয়া পিল খাওয়াই।
- আমি বললাম, তুই কনডম ব্যবহার করছ না কেন?
- সে বলল, জুতা পায়ে সাঁতার করা আর কনডম ব্যবহার করা নাকি এক কথা। মিষ্টি খেলে নাকি হাতে নিয়ে খাওয়া ভালো, পলিথিনে মুড়ে কেন?
- আমি বললাম, তোর বউয়ের এই অবস্থা কাশফুলের নরম ছোঁয়ার জন্য।

আমাদের দেশের ভাবীরা মায়া বড়ি খেয়ে ভাইদের খুশী করেন। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে ক্ষমতা যখন পুরুষের হাতে তাই সে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ার রাজনীতিটা ভালভাবেই করে। নারী কেন শুধু পিল খাবে?

এই পিল খেয়ে মেয়েরা মাথা ব্যথা, মাথা ঘুরানো, মোটিয়ে যাওয়া, হাই প্রেসার, ডিপ্রেশন, মাসল ক্রাম্পিং, স্ট্রোক, লিভার ডিজিজ, গল স্টোন, প্যানক্রিয়াটাইটিস, থ্রোম্বোএম্বলিজম, হার্ট অ্যাটাক, ব্রেস্ট টেন্ডারনেস, ডিসম্যানোরিয়া, সেক্সের প্রতি আগ্রহ কমে যাওয়া, কোলেস্টেরল বেড়ে যাওয়া, চুল পড়ে যাওয়া ক্যান্সারসহ নানা জটিলতায় ভুগে ভুগে নিঃশেষ হয়।

এই পিল নারীর শরীরের প্রতি অনাচার স্বরূপ। জরায়ু যেহেতু নারীর, তাই এই গরল তো তাকে গলাধকরণ করতে হচ্ছে। হাফিজকে বললাম, বউকে যদি সত্যি ভালবাসিছ, তাহলে আর যেন একটাও কাশফুলের নরম ছোঁয়া না লাগে।

Add
  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না