ঢাকা      মঙ্গলবার ২৩, এপ্রিল ২০১৯ - ৯, বৈশাখ, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. বাহারুল আলম

প্রখ্যাত পেশাজীবী নেতা


চিকিৎসক বেকার, এ লজ্জা কার?

‘চিকিৎসক বেকারত্ব’ অবরুদ্ধ করে রেখেছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) – এ লজ্জা কার? জাতির না স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের? 

চিকিৎসক বেকারত্ব রাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার উপর কি মাত্রায় আক্রমণাত্মক ভূমিকা রাখছে এবং ভবিষ্যতে রাখবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন অবরুদ্ধ হওয়ার মধ্য দিয়ে সরকারকে তা স্পষ্ট ভাবে জানান দিচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অপরিণামদর্শী চিকিৎসক তৈরির সিদ্ধান্তের সংকট- এ দৃশ্যপট। এ সংকট ভবিষ্যতে আরও তীব্র হবে।

৮০ থেকে ৯০ হাজার মেধাবী শিক্ষার্থীর মধ্য হতে চিকিৎসক বাছাইয়ের যে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা প্রতিবছর অনুষ্ঠিত হয় তা দেখে কখনও ভাবা যায় না, প্রায় অর্ধ লক্ষ চিকিৎসক বাংলাদেশে বেকার আছে। সমকালীন সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরির বিজ্ঞপ্তির বিপরীতে বিপুল পরিমাণ আবেদনকারী চিকিৎসক ও তাদের তদবিরে এমন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে যে কর্তৃপক্ষ নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত করতে বাধ্য হল। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও তার মন্ত্রণালয় চিকিৎসক বেকারত্বের বিষয়টি আমলা নেওয়ার দায় অনুভব করেননি। কারণ নাগরিকদের চিকিৎসা দেওয়ার দায়ও তারা একইভাবে অনুভব করে না।

জনসংখ্যার আনুপাতিক হারে কত চিকিৎসক নিয়োগ দিতে হবে– স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিষয়টি আদৌ জানেন কিনা জনমনে সন্দেহের উদ্রেক করে! জানলে পাবলিক হাসপাতালে লক্ষাধিক চিকিৎসককে জনস্বাস্থ্য রক্ষায় নিয়োগের উদ্যোগ নিতেন। 

প্রতি বিসিএসে ২০০-৫০০, বিশেষ বিবেচনায় ৫০০০ চিকিৎসক নিয়োগের ভাঙা ঢোল বাজিয়েই চলছেন। অথচ নবসৃষ্ট ও সৃষ্ট পদের বিপরীতে চিকিৎসকের প্রয়োজন এর চেয়েও বেশি। রোগী চিকিৎসকের আনুপাতিক হারের প্রয়োজনীয়তা কখনও বিবেচনা করেননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


সম্পাদকীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

হিমোফিলিয়ার চিকিৎসায় সরকারি উদ্যোগ জরুরি

রাত ১১টা। মোবাইলে অপরিচিত নম্বর থেকে কল আসে। ভয়-সংশয়ে ফোন ধরতেই ওপাশ…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর