ঢাকা      শনিবার ১৫, ডিসেম্বর ২০১৮ - ৩০, অগ্রাহায়ণ, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. কাওসার উদ্দিন

সহকারী সার্জন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।


ডায়রিয়া সম্পর্কে জেনে নিন

রোগী ডায়রিয়া নিয়ে আসলে অনেকেই বিশেষ করে গ্রাম্য হাতুড়ে শ্রেণী তাদের মনের মাধুরী মিশিয়ে ট্রিটমেন্ট শুরু করে। তাদের পছন্দের তালিকায় সবার উপরে আছে থার্ড জেনারেশন Injectable Cephalosporin Ceftriaxone. ইহা আবার তাদের কাছে সর্বরোগের মহৌষধ! ডায়রিয়া কলেরা, মারামারি কাটাকাটি, জ্বর গায়ে ব্যাথা সব ক্ষেত্রে তারা এটা নিশ্চিন্তে ব্যবহার করেন। এ মনে করার কোন কারণ নাই যে এ কাজ শুধু হাতুড়েরাই করে, করে বহুত পাশ করা নন হাতুড়েও! এরপর আছে Azithromycin, তারপর Ciprofloxacin, এরপর Metronidazole, সাথে আরো অনেক কিছু! কেউ কেউ তো আরো এক্সপার্ট, জীবাণু থাক বা না থাক, জীবাণু তুই পালাবি কোথায় এই নীতিতে গোটা তিন চারেক এন্টিবায়োটিক ককটেল হিসেবে দিয়ে দেয়! তাদের কথা আর নাই বা বলি, এদেশে অনেক ডাক্তার, কেউ পড়ে হয়, না পড়েও হয় অনেকে, আবার কেউ হয় ওষুধ কোম্পানির গালগল্প শুনে!

ভূমিকা অনেক হল, এবার আসল কথায় আসি। ডায়রিয়া কী?

  • ডেফিনিশন অনেক রকম। তবে আমি যা জানি - ‘দিনে ৩ বারের বেশি নরম বা পাতলা পায়খানা হওয়া।’ তবে যে সব বাচ্চারা বুকের দুধ খায় তাদের প্রায়শই দিনে ৩ বারের বেশি নরম পায়খানা হয় যা কিন্তু ডায়রিয়া না। ধরুন কেউ দিনে ৩০ বার পায়খানা করে, কিন্তু শক্ত, তাহলে তাও কিন্তু ডায়রিয়া না। তাহলে বলতে পারি ডায়রিয়া বলার প্রথম শর্ত - পায়খানা নরম বা পাতলা হওয়া, আর দ্বিতীয় শর্ত - দিনে ৩ বারের বেশি হওয়া।
  • আর ডায়রিয়ার এই পায়খানার সাথে যখন রক্ত মিশানো থাকে তখন তাকে বলে ডিসেন্ট্রি (Dysentery). সাথে পিচ্ছিল পিচ্ছিল mucous থাকতে পারে, নাও পারে!
  • ডায়রিয়া বা ডিসেন্ট্রি যাই হোক, সাথে vomiting থাকতে পারে, নাও পারে।
  • ডায়রিয়ার রোগীর প্রথম ও প্রধান চিকিৎসা fluid replacement. যতটুকু fluid লস হয়, ঠিক ততটুকু দিতে হবে। fluid কিভাবে লস হয়?
  • ডায়রিয়া শুরু হওয়ার আগে infective বা non infective কারণে gastroenteritis ডেভেলপ করে। ফলে GIT ঠিকমত কাজ করতে পারে না। একটা কাজ একটু বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়, আর সেটা হল absorption.

তাহলে যদি প্রশ্ন করি ডায়রিয়া কিভাবে হয়, excessive secretion না impaired absorption এ? তাহলে উত্তর হবে impaired absorption এ. কারণ secretion যতই বেশি হোক না কেন, absorption power ভাল থাকলে লস না হয়ে সব আবার রক্তে ফিরে আসবে!

  • ধরুন আমি ১ লিটার তরল খেলাম, আমার নরম পায়খানা হল ১ লিটার, তাহলে এটা সাধারণ ডায়রিয়া। আর যদি ১ লিটার তরল খেলাম কিন্তু পায়খানা হল ২ লিটার! তাহলে এটা secretory ডায়রিয়া, যেখানে absorption তো হচ্ছেই না উল্টো কিছু তরল secretion হয়ে বের হয়ে যাচ্ছে!
  • fluid replacement এর আগে কতবার কতটুকু করে পায়খানা হলো সেটা হিসেব করে fluid loss বের করা হয়। তরল লসের ফলে রোগী তারল্য সংকটে ভোগে। সেই সংকট দূর করতে রোগীর শরীরে যথেষ্ট তরল সরবরাহ করতে হয়। কতটুকু fluid replace করতে হবে সেটা শুধু বর্তমান ongoing fluid loss দেখে হিসাব করা হয় না, previous কতটুকু লস হয়েছে সেটাও ধরতে হয়। দুই লসের সাথে নিয়মিত প্রয়োজন (আমরা প্রতিদিন যেটা খাই, ১-২ লিটার) যোগ করে বের করতে হয় মোট প্রয়োজন। এই মোট পরিমাণ রোগীকে সারাদিনে দেওয়া হয়।

পূর্বের লস বের করার একটা সাধারণ থিউরি হল, রোগী যদি দিনে ৬-১০ বার পায়খানা করে তবে তার ২-৪ লিটার ফ্লুইড লস হয়। আর সাথে যদি বমি করে থাকে, ধরুন ১ বার ১ গ্লাস পরিমাণ - তাহলে ২০০মিলি।

মনে করি রোগীর previous loss ৪ লিটার, ongoing loss ৪ লিটার, প্রতিদিন শরীরের দরকার ২লিটার। তাহলে তার সারাদিনে লাগবে মোট ১০ লিটার। এখন এই ১০ লিটার fluid replacement কি সমহারে করবো? না! বরং ১০ লিটার ফ্লুইড এর মধ্যে যে ৪ লিটার pervious loss হয়েছে সেটা তাড়াতাড়ি শরীরে ফিরিয়ে দিতে হবে। তাই দেখা যায় রোগীর dehydration বেশি হলে loading dose হিসেবে ওই ৪ লিটারের অর্ধেক ২ লিটার শুরুতে running দেওয়া হয়, অনেক সময় চার হাত পায়ে একসাথে দেওয়া হয়!

কোন ধরণের ফ্লুইড দিবো?

  • ডায়রিয়াতে যে ফ্লুইড লস হয়, সেটা isotonic. যেখানে থাকে ECF এর সমান concentration এর water ও electrolyte. তাই তেমন isotonic ফ্লুইড দিতে হবে।

কোন রুটে দিবো?

  • রোগী যদি মুখে খেতে পারে এবং বমি না করে তবে মুখে ORS দিবো। আর যদি রোগীর vomiting থাকে বা অজ্ঞান রোগী তবে intravenous fluid replacement করবো।

মুখে ORS ও ও শিরায় IV fluid দুটোই সমান কার্যকর। এমনকি সেটা cholera হলেও, যেখানে ১০-২০ লিটার ফ্লুইড লস হয়ে severe dehydration হতে পারে!

তাই এটা মনে করার কোন কারণ নেই যে রোগী ডায়রিয়া বা কলেরা নিয়ে হাজির হলেই স্যালাইন ঢুকাও। গ্রামে বাবুডাক্তাররা এটাই করেন, আর অনেক রোগীও নাকি স্যালাইন নিয়ে আরাম বোধ করে, তাদের দূর্বলতা সারে!

  • এবার আসি ORS প্রসংগে। এখানে শুধু water ও electrolyte ই না, সাথে carbohydrates ও আছে! ডায়রিয়ায় লস তো water ও electrolyte, সাথে carbohydrates কেন?

কারণ দুটো! প্রথমত gut এ electrolyte absorption একটি active process যেখানে শক্তি লাগে। ORS এ carbohydrates যোগ করা হয় এই শক্তি যোগানোর জন্য। এর ফলে প্রথমত বেশি বেশি electrolyte absorption হবে। দ্বিতীয়ত carbohydrate শরীরে শক্তি যোগাবে, কারণ টয়লেটে যেতে যেতে রোগীর অবস্থা হালুয়া টাইট!

আর যদি IV fluid দেওয়া হয় তবে সেখানে carbohydrates থাকাটা জরুরী নয়, আর থাকলেও কোন সমস্যা নাই। আর তাই NS, DNS, Cholera saline সবই দেওয়া যায়। এখানে শুধু DNS এ carbohydrates আছে, বাকি দুটোতে নাই। ওদিকে শুধু Cholera saline এ K থাকে, কিন্তু কেন?

  • ডায়রিয়া বা বমি যাই হোক না কেন সেখানে প্রধান যে electrolyte গুলো থাকে সেগুলো Na, Cl, K, H, HCO3, etc. আমাদের মূল লক্ষ্য Na, Cl, K এর ঘাটতি পূরণ করা। এই ৩ টার মধ্যে সাধারণ ডায়রিয়াতে K এর ঘাটতি যে খুব বেশি হয় তা কিন্তু না। কারণ K বেশি থাকে ICF এ ECF অপেক্ষা। ICF থেকে K plasma তে তখনই বের হয় যখন acidosis হয়ে plasma তে H বেড়ে যায়। এই অতিরিক্ত H plasma থেকে cell এ ঢোকে, আর তার বিপরীতে K আসে cell থেকে plasma তে। পরে plasma থেকে এই K ডায়রিয়া ফ্লুইডে বের হয়ে যায়। তাহলে একটা বিষয় ক্লিয়ার হল যে K লস একটু পরে হয় যখন তীব্র ডায়রিয়া হয়, আর এর সাথে acidosis এর একটা সম্পর্ক আছে।

এবার আর একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। পাকস্থলীতে HCl বের হয়, তাই সেখানে H বেশি। আর তাই বমি হলে পাকস্থলীর খাবারের সাথে H লস হয় বেশি, অর্থাৎ alkalosis. তাই বলতেই পারি vomiting বেশি হলে metabolic alkalosis হয়।

অন্যদিকে ডায়রিয়াতে পায়খানার সাথে পাকস্থলীর নিচের দিকের ফ্লুইড বের হয়, আর আমরা জানি পাকস্থলীর নিচের দিকে ডিওডেনামে HCO3 rich fluid বেশি থাকে। তাই ডায়রিয়ায় HCO3 লস বেশি হয়, অর্থাৎ acidosis হয় এখানে. cholera তে প্রচুর পায়খানা হয়, হয় metabolic acidosis এবং K লস। আর তাই cholera saline এ K থাকে। Cholera saline এর একটা ভাল বিকল্প হল আমাদের দেশের icddr'b এর আবিষ্কার ORS, কারণ এখানেও K আছে! cholera saline না দিয়ে রোগীকে NS, DNS দিলে K আছে এমন খাবার বেশি খেতে বলতে হবে, যেমন কলা, কমলা, ডাবের পানি, ইত্যাদি! পাশাপাশি energy source হিসেবে অন্যান্য স্বাভাবিক খাবার তো খাবেই।

  • fluid দিয়ে শুধু বসে থাকলেই হবে না, fluid overload হচ্ছে কিনা সেটাও মনিটরিং করতে হবে, দেখতে হবে central venous pressure, urine output, তা না হলে hydrostatic pressure বেড়ে গিয়ে pulmonary oedema, cerebral oedema, generalized oedema হতে পারে; cardiac workload বেড়ে হতে পারে heart failure.

অন্যদিকে আবার যদি ফ্লুইড পরিমাণমত না দিই তবে renal perfusion কমে renal failure হতে পারে; severe dehydration এ circulatory failure, shock হয়ে রোগী অক্কাও পেতে পারে। তাই চেক এন্ড ব্যালেন্স!

ডায়রিয়ার চিকিৎসাকে আপাত দৃষ্টিতে জলবৎ তরলং মনে হলেও, আসলে তা বেশ হিসেবের ব্যাপার! এতক্ষণ যা পড়লাম ডায়রিয়ার মূল চিকিৎসা শুধু তাই। যদি এই ডায়রিয়ার কারণ infective gastroenteritis হয় তবে...

২য় অংশ পড়তে ক্লিক করুন

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ক্রিপটোমেনোরিয়া মাসিক যেথা লুকিয়ে রয়

ক্রিপটোমেনোরিয়া মাসিক যেথা লুকিয়ে রয়

রামিসা, চৌদ্দ বছরের টলটলে কিশোরী। ক্লাস নাইনে পড়ে। হাত পা বড় হয়ে…

স্ট্রোক প্রতিরোধে করণীয়

স্ট্রোক প্রতিরোধে করণীয়

আগে স্ট্রোকের রোগী মানেই মাথায় আসতো বুড়ো কোন রোগীর মুখ। ।কিন্তু এই…

টার্নার সিনড্রোম কী, উপসর্গ ও চিকিৎসা

টার্নার সিনড্রোম কী, উপসর্গ ও চিকিৎসা

ক্রোমোসোমের সমস্যার জন্য টার্নার সিনড্রোম হয়।  মানুষের শরীরের দেহকোষে ৪৬টি ক্রোমোজোম থাকে। …

আমি তো মরে গেছি, আমাকে গোরস্তানে রাখো

আমি তো মরে গেছি, আমাকে গোরস্তানে রাখো

আমেনা বেগম, বয়স ৪৬।  কিছু দিন পূর্বে জ্বরে ভুগেন।  ৪-৫ দিন জ্বর…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর