ঢাকা      রবিবার ২১, অক্টোবর ২০১৮ - ৫, কার্তিক, ১৪২৫ - হিজরী



যোবায়ের মাহমুদ

শিক্ষার্থী, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ। 


বড় কলিজা মানেই কি বেশি সাহস?

বাংলাদেশী ওপেনার তামিম ইকবাল ইনজুরড অবস্থাতেও এগারোতম ব্যাটসম্যান হিসেবে এক হাতে ব্যাট করতে নামলেন।  অবিশ্বাস্য এক দৃশ্য!

বাংলাদেশের মাটিতে টিভি ঘিরে জটলা পাকিয়ে থাকা দর্শকেরা উল্লাস ধ্বনিতে মেতে উঠলেন। ফ্রাকচার হওয়া হাতের ব্যান্ডেজ পেছনে লুকিয়ে রেখে লাকমালের শর্ট বলটি যখন ব্যাকফুটে সরে ডানহাতের ব্যাট দিয়ে মোকাবেলা করলেন, পুরো দুনিয়ার মানুষ হয়তো ভাবছিলেন, এও কি সম্ভব?

সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে তখন উত্তাল অবস্থা। আটচল্লিশতম ওভারের পঞ্চম বলে মুশি যখন পেরেরাকে মিড উইকেটের উপর দিয়ে উড়িয়ে ছয় মারলেন, ক্রিকইনফোতে একজনের মন্তব্য ছিলো এমন-"If Mushfiqur gets out now, will it count as Tamim carrying his bat?"

ফেসবুকে বাংলাদেশী একজনের মতামত ছিলো, 'সবাই কলিজা হাতে নিয়ে ব্যাট করতে পারে না।  তামিম পারে।  শুধু তামিমই পারে'।  আরেকজন লিখলেন, 'তামিমের ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি লম্বা শরীরের পুরোটা জুড়েই কলিজা'।  স্ক্রল করতে করতে যতগুলো পোস্ট চোখে পড়লো, অধিকাংশ পোস্টেরই মূল কথা ছিলো, তামিমের 'কলিজা' আসলেই অনেক বড়।

কিছু প্রাগমেটিক কথাতে আসি।  মেডিকেল সাইন্সে কারো লিভার বা কলিজা বড় হওয়াকে ভালো চোখে দেখা হয় না।  বড় লিভার বা কলিজার একটা গালভরা নামও আছে, 'হেপাটোমেগালী' (Hepatomegaly)।  কারো হেপাটোমেগালী আছে শুনলে কোন ডাক্তারই খুশি হবেন না। 

কোনো একজন রোগীর মেটাস্টাটিক ক্যান্সার, নন অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজেজ বা ভাইরাল হেপাটাইটিস থাকলে সাধারনত ক্লিনিকালী হেপাটোমেগালী পাওয়া যায়। অন্যান্য অনেক রোগেও এটা পাওয়া যেতে পারে। কিন্তু ক্রিকেটে তাহলে কেন এই বড় কলিজা- ছোট কলিজা নিয়ে আলোচনা? আর এই কলিজার সাথে সাহসের সম্পর্কের আলোচনা কি বাংলাদেশিরাই শুধু করেন? উহু.. মোটেও না! চলুন একটু নজর বুলিয়ে আসি।

প্রাচীন ভারতের তৎকালীন শ্রেষ্ঠ সার্জন 'শুশ্রুতা'র মতে, মানুষের শরীরের প্রধান তিনটি উপাদান Vaju( বাতাস), Kapheh( শ্লেষ্মা) এবং Pittam( পিত্ত)। এই উপাদানগুলোর মধ্যে অসামঞ্জস্যই শারীরিক অসামঞ্জস্য সৃষ্টি করে।

উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, বেশি পরিমাণ পিত্ত রাগ ও সাহস সৃষ্টি করে, কিন্তু কম পরিমাণ পিত্ত ভীরুতার জন্ম দেয়। [১]

আর পিত্ত কোথায় তৈরি হয়, আমরা সবাই নিশ্চয়ই জানি।  কলিজাতে।  কাজেই আমরা কিন্তু খুব একটা খারাপ কিছু বলিনি।

বিখ্যাত ইংরেজ সাহিত্যিক শেক্সপিয়ারের নাম শোনেননি, এমন লোক খুব কমই পাওয়া যাবে। তার লেখনীতেও এ ব্যাপারটি এসেছে। হ্যামলেট গভীর হতাশাভরে উচ্চারণ করে,

" ... it cannot be

But I am pigeon-liver'd and lack gall

To make oppression bitter, or ere this

I should have fatted all the region kites

With this slave's offal: bloody, bawdy villain!" [২]

শব্দগুচ্ছটা হলো 'Pigeon liver'd & lack gall'. এখানে মূল আলোচনা হ্যামলেটের ভীরুতা নিয়ে। কবুতরের লিভার সঙ্গত কারণেই ছোট হয়। আরও মজার ব্যাপার হলো, কবুতরের কোন গলব্লাডারও নেই। কাজেই পিত্ত জমিয়ে রাখার কোন ব্যবস্থা কবুতরের নেই। সাহসের দিক বিচার করলে কবুতরকে একটু কম সাহসীই বলতে হচ্ছে। আর এখানে হ্যামলেট হচ্ছে pigeon-liver'd.

আচ্ছা, সূর্যোদয়ের দেশ জাপানের কথা নিশ্চয় জানা আছে? জাপানীজদের মধ্যে একটা কথা প্রচলিত আছে, kimo ga futoi (যার সরল অর্থ An Enlarged Liver). Kimo শব্দটি নেটিভ জাপানিজদের মধ্যে লিভার/ গলব্লাডার দুটোই বোঝাতে ব্যবহৃত হয়। আর উপরের এই kimo ga futoi কথাটি ব্যবহৃত হয় bold and daring কোন মানুষকে বোঝাতে। [৩]

আবার, ছোট ছোট চোখ আর বোচা নাকের জন্য পরিচিত বর্তমানের টেকজায়ান্ট চীনারাও কিন্তু একই রকম কথা ব্যবহার করে। চাইনিজ ভাষায় লিভার বোঝাতে kan এবং গলব্লাডার বোঝাতে tan ব্যবহার করা হয়। আর একসাথে kan-tan বলতে Courage কেই বোঝানো হয়। [৪] কাজেই মিল তো পাচ্ছেন ই!

এবার একটু দূরের একটি দেশের কথা বলি। দেশটির নাম কম্বোডিয়া।  আর, কম্বোডিয়ার অধিবাসীরাও লিভার কিংবা কলিজাকে সাহসের জায়গা বলেই অভিহিত করে।  তাদের ভাষায় Thlaoem thom( a big liver) বলতে দুঃসাহসী লোককেই বোঝায়।[৫]

শেক্সপিয়ারের ব্যাপারটা তো আমরা জেনেছিই। আবার মধ্যযুগের (Medieval period) ইংরেজরাও লিভার বা কলিজাকে সাহসের জায়গা বলে মনে করতো। কাপুরুষদের জন্য তারা খুব চমৎকার একটা ফ্রেজ ব্যবহার করতো 'Lily-livered'. [৬]

এখনকার মডার্ন মেডিকেল সাইন্স যদিও লিভার বা কলিজার কাজের মধ্যে সাহসের কোন ব্যাপার আছে বলে দাবি করে না, তবু স্বাভাবিক কথাবার্তায় সাহসিকতার প্রসঙ্গ আসলে আপনি কলিজার কথা তুলতেই পারেন। কলিজার আলোচনা চলছে। চলুক। হাজার বছরের পুরোনো সে আলোচনা।

তথ্যসূত্র : [১]Some Meanings of Liver by SHERMAN M. MELLINKOFF, M.D

[২] প্রাগুক্ত

[৩] প্রাগুক্ত এবং The Complete Guide to Japanese Kanji, 501 page

[৪] প্রাগুক্ত 

[৫] Why did they kill: Cambodia In the Shadow of Jenocide, 290 Page

[৬] The Amazing Language of Medicine, 76 page

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে চান্স না পেলে এখন মেডিকেলে পড়ে!

মেইড ইন চায়না এখন শুধু জিনিসপত্রেই সীমাবদ্ধ নেই। শুরু হয়েছে হিউম্যান রিসোর্স…

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

মুলারিয়ান এজেনেসিস: প্রকৃতির অবিবেচক খেয়াল ও প্রমিতির কান্না

প্রমিতি, বয়স- ১৬। এইচএসসি ১ম বর্ষে পড়ে। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বল প্রজাপতির মতো। যখন কথা…

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

সব মৃত্যুই দুঃখের, সুখের কোন মৃত্যু নেই!

তখন আমি সিওমেক হাসপাতালের ইন্টার্ন। মেডিসিন ওয়ার্ডে রাউন্ড দিচ্ছেন প্রফেসর ইসমাইল পাটোয়ারি…

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ইন্টার্ন চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা

ফাঁকিবাজির মহান ব্রত নিয়ে ইন্টার্নি শুরু করেছিলাম। আমি জন্মগত ভাবেই ফাঁকিবাজ। সবাই…

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

‘কেটা ফের জানতোক যে, পিঁপিয়া খাল্যে ছ্যালা ধলো হয়?’

এক সদ্য গর্ভবতী রোগীকে কাঁচা পেঁপে খেতে নিষেধ করলাম। - আনারস আর কাঁচা…

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

‘বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে’

ডাক্তার- আপনার সমস্যা কী? রোগী- বুকের ভিত্রে চ্যাংনা চ্যাঁও চ্যাঁও করে। ডাক্তার-…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর