ঢাকা      রবিবার ২৪, ফেব্রুয়ারী ২০১৯ - ১১, ফাল্গুন, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. সাদেকুল ইসলাম তালুকদার

বিভাগীয় প্রধান, প্যাথলজি,

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ।


‘ডাক্তার সাব, আপনি স্টেথোস্কোপ কানে লাগাননি’

১৯৮৫ সনে যখন আমরা এমবিবিএস পাস করার পর ইন-সার্ভিস-ট্রেইনিং করতাম তখন প্রতি ওয়ার্ডে একজন করে ক্লিনিক্যাল এসিস্টেন্ট বা সিএ থাকতেন। এখন এই পোস্টের নাম এসিস্টেন্ট রেজিস্টার। 

ওয়ার্ডের সকল রোগীর সার্বিক দায়িত্বে থাকতেন এই সিএ সাহেব। সিএ সাহেবকে আমরা ভাইয়া বা ভাই বলে সম্ভোধন করতাম। সকাল আটটায় এসে সিএ সাহেব সব রোগীর ফলোআপ দিয়ে ফাইলে লিখে রাখতেন। তার নোট বুকে লিখে রাখতেন যে সব রোগীর এবনর্মাল ফাইন্ডিং আছে। 

কোন কোন রোগীকে ডিপার্টমেন্টের হেডকে দেখাতে হবে। ডিপার্টমেন্টের হেড সকালে এসে অধ্যক্ষের সাথে মিটিং করে, লেকচার ক্লাস নিয়ে, লাইব্রেরি ওয়ার্ক করে হাসপাতালের চেম্বারে বসতেন। সিএ সাহেবকে ডেকে রোগীদের অবস্থা জেনে নিতেন। তারপর ওয়ার্ডে রাউন্ড দেয়া শুরু করতেন।

আমি যে ওয়ার্ডে ট্রেইনিং নিচ্ছিলাম সেই ওয়ার্ডের বিভাগীয় প্রধান রাউন্ড দেয়া শুরু করলেন। আমরা দলবদ্ধভাবে স্যারদের পিছু পিছু থেকে স্যারদের থেকে শিখে নিতাম। সব রোগী স্যার দেখতেন না। সিএ সাহেবের রিকুয়েস্ট অনুযায়ী তিনি রোগী পরীক্ষা করতেন। স্যারের গায়ে এপ্রোন থাকতো। গলায় ঝুলানো থাকতো স্টেথোস্কোপ। 

রোগীর বেডের পাশে দাঁড়িয়ে বুকের উপর স্টেথোস্কোপ ধরে রোগীকে লম্বা শ্বাস নিতে বলতেন। স্টেথোস্কোপ সরিয়ে সরিয়ে বুকের উপর ধরতেন আর মুখে বলতেন ‘শ্বাস, শ্বাস, শ্বাস।’ এই কথা বলতে স্যারের কখনো ভুল হতো না। আমরাও স্যারের মতো করে বলতে চেষ্টা করতাম ‘শ্বাস, শ্বাস, শ্বাস।’ 

একবার পাশের রোগীর শ্বাস দেখে স্যার চলে যাচ্ছিলেন অন্য রোগীর কাছে। কারণ, সিএ সাহেবের লিস্টে এই রোগী ভাল আছেন। স্যারকে দেখতে হবে না। 

ভাল রোগীটি স্যারকে ডেকে বললেন, ডাক্তার সাব আমাকে একটু দেখুন বলে বুকটা বের করে দিলেন। 
- স্যার মৃদু হেসে রোগীকে সন্তুষ্ট করার জন্য বুকের উপর স্টেথোস্কোপ ধরলেন তিন জায়গায়, আর বললেন ‘শ্বাস, শ্বাস, শ্বাস।’ 
- রোগী বললেন, ‘ডাক্তার সাব, আপনি স্টেথোস্কোপ কানে লাগাননি, লাগিয়েছেন আপনার গলায়।’ 
- স্যার আশ্চর্য হয়ে বললেন, ও তাই তো, এবার লাগালাম। শ্বাস, শ্বাস, শ্বাস।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

একটি ভুল, একটি গুজব আর বিনা অপরাধের শাস্তি

একটি ভুল, একটি গুজব আর বিনা অপরাধের শাস্তি

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের (শেবাচিম) একটি বিভাগে ডিপ্লোমা কোর্স আনার প্রক্রিয়া চলছিল। উৎসাহী…

সৌদি অপারেশন থিয়েটার বনাম আমাদের অপারেশন থিয়েটার

সৌদি অপারেশন থিয়েটার বনাম আমাদের অপারেশন থিয়েটার

সৌদি আরবে প্রথম অপারেশন থিয়েটারে ঢোকার দিনটা আমার কাছে মনে রাখার মত…

মানুষের ভালবাসায় আমি ঋণী

মানুষের ভালবাসায় আমি ঋণী

আমি ময়মনসিংহ শহরে ৩ বছর ৪ মাস কাটাচ্ছি। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের…

রেইপ কেইস ও ধর্ষণ সার্টিফিকেট

রেইপ কেইস ও ধর্ষণ সার্টিফিকেট

কেবল মাত্র ভোরে হয়েছে। পাখির ডাক শুনা যাচ্ছে। আমাদের ইমার্জেন্সী ডাক্তার রুম…

নতুন চেম্বারে অশরীরী আত্মা

নতুন চেম্বারে অশরীরী আত্মা

নতুন একটা চেম্বার পেয়েছি আমি। দামী হাসপাতালের চালু চেম্বার। আজ থেকে একমাস…

আত্মহত্যার আত্মকাহিনী

আত্মহত্যার আত্মকাহিনী

যে রাতে আমি প্রথম আত্মহত্যার সিদ্বান্ত নিয়েছিলাম, সেদিন সন্ধ্যা থেকেই খুব বৃষ্টি…













জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর