ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

ডা. মো. ফজলুল কবির পাভেল

সহকারী সার্জন, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল


১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১২:০৭ পিএম

কষ্টকর এক রোগ এনাল ফিশার

কষ্টকর এক রোগ এনাল ফিশার

এনাল ফিশার কষ্টকর একটি রোগ। সহজে কাউকে বলাও যায় না। চিকিসককেও অনেকে বলতে চায় না। আসলে এটি জটিল কোন রোগ নয়। এর ভাল চিকিৎসা আছে। সুতরাং কারো এমন সমস্যা থাকলে দ্রুত চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিত।

এনাল ফিশার পায়ুপথের একটি রোগ। এ রোগে পায়ুপথের কিছু অংশ ছিঁড়ে যায়। শক্ত পায়খানা হলে এমন হতে পারে। তবে অন্যান্য কারণেও এনাল ফিশার হয়।

উপসর্গ: 
 এনাল ফিশারে বিভিন্ন উপসর্গ দেখা যেতে পারে। যেমন-
১. মলের সাথে টাটকা রক্ত যায়।
২. ব্যথার কারণে রোগী মলত্যাগ করতে ভয় পায়।
৩. ব্যথা থাকে ২-৩ ঘন্টা।
৪. আস্তে আস্তে মলদ্বার সরু হয়ে যায়। তখন আরো বিভিন্ন উপসর্গ দেখা যায়।

খুব ভালভাবে ইতিহাস নিলেই এনাল ফিশার ডায়াগনসিস সম্ভব। এছাড়া চিকিৎসক মলদ্বারের ভেতর আঙ্গুল ঢুকিয়ে পরীক্ষা করেন। চেম্বারে বসেই এটি সম্ভব। একে DRE (Digital rectal examination) বলা হয়। DRE করলে অন্য কোন অসুখ আছে কিনা তাও বোঝা যায়। শতভাগ নিশ্চিত হবার জন্য এন্ডোস্কোপি করা হয়। 

এনাল ফিশারের কারণ:
কিছু কারণে এনাল ফিশার হয়। যেমন- দীর্ঘমেয়াদী ডায়রিয়া, ক্রনস ডিজিজ, আলসারেটিভ কোলাইটিস, সিফিলিস ও হার্পিস রোগে এনাল ফিশার হতে পারে। সেজন্যও কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।

চিকিৎসা:
এনাল ফিশার কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ভাল হয়ে যায়। কোন চিকিৎসা ছাড়াই ভাল হয়। তবে ভাল হয়ে আবার হতে পারে। যদি ৬ সপ্তাহের বেশি উপসর্গ থাকে তবে তাকে ক্রনিক এনাল ফিশার বলে। অতিসহজেই এ রোগের চিকিৎসা করা যায়। স্থানীয়ভাবে কিছু ওষুধ প্রয়োগ করে এবং যদি শক্ত পায়খানার জন্য এমন হয় তবে পায়খানা নরম করার ওষুধ দিলে আরাম পায়। সাধারণ একটি অপারেশন করে এ রোগ সম্পূর্ণভাবে সারিয়ে তোলা যায়। রোগীকে বেশিদিন হাসপাতালেও থাকতে হয় না।

এনাল ফিশার প্রতিরোধে করণীয়:
এনাল ফিশার প্রতিরোধ সম্ভব। যার শক্ত পায়খানা হয় তার জন্য আঁশ বা ফাইবার জাতীয় খাবার এবং প্রচুর পরিমাণ পানি পান করা উচিত। কিছু অসুখেও শক্ত পায়খানা হয়। সে অসুখ আছে কিনা তা দেখা উচিত। পায়খানার বেগ আসলে কখনো চেপে রাখা উচিত নয়। নিয়মিত ব্যায়াম করা উচিত। শাকসবজি ও ফলমূল প্রচুর পরিমানে খাওয়া উচিত।

এনাল ফিশার চিকিৎসার পর রোগী সম্পূর্ণ স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে। এটি কোন অভিশাপ বা গোপন রোগ নয়। এমন সমস্যা হলে দ্রুত কলোরেক্টাল সার্জনের কাছে যাওয়া উচিত। তাহলে ভবিষ্যতে জটিল সমস্যার হাত থেকে বাঁচা যাবে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে