০৩ অগাস্ট, ২০১৬ ০১:২৪ পিএম

শিশু খাদ্য বিপণন নিয়ন্ত্রণ আইনের বিধি হয়নি ৩ বছরেও

শিশু খাদ্য বিপণন নিয়ন্ত্রণ আইনের বিধি হয়নি ৩ বছরেও

মেডিভয়েস  ডেস্কঃ বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ শুরু হচ্ছে সোমবার (১ আগস্ট)। শিশুকে মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে উৎসাহিত করতে নানারকম কর্মসূচি পালন করবে সরকার। কিন্তু মাতৃদুগ্ধ বিকল্প শিশু খাদ্যের প্রসার ঘটাতে দেশি-বিদেশি কোম্পানিগুলোর তৎপরতা থেমে নেই।

যদিও ২০১৩ সালের ২২ সেপ্টেম্বর ‘মাতৃদুগ্ধ বিকল্প শিশু খাদ্য, বাণিজ্যিকভাবে প্রস্তুতকৃত শিশুর বাড়তি খাদ্য ও উহা ব্যবহারের সরঞ্জামাদি (বিপণন নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩’ প্রণয়ন করেছে সরকার। প্রায় ৩ বছর হলেও আইনের বিধি প্রণয়ন করতে পারেনি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

বিধি না হওয়ায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে মায়ের দুধের বিকল্প শিশুখাদ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানিগুলোর দৌরাত্ম্য রোধ করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এসব কোম্পানি চিকিৎসকদের সঙ্গে আঁতাত করে শিশু জন্মের সঙ্গে সঙ্গেই মায়েদের দুধের পরিবর্তে গুঁড়ো দুধ ধরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কৌশলে বিজ্ঞাপনও চালিয়ে যাচ্ছে এ সব কোম্পানি।

‘বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ-২০১৬’ নিয়ে রবিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। তিন বছরেও কেন বিধি প্রণয়ন করা যায়নি- একজন সাংবাদিক প্রশ্ন করলে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রোকসানা কাদের বলেন, ‘বিধি আমরা প্রণয়ন করেছি। কিন্তু ভেটিংয়ের জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। তারা বারবার নানা ব্যাখ্যা দিয়ে এটি ফেরত পাঠাচ্ছে। বিধিটি এখনও আইন মন্ত্রণালয়েই আছে।’
সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী এ বছর বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে-ব্রেস্ট ফিডিং এ কি টু সাসটেইন্যাবল ডেভেলপমেন্ট। অর্থাৎ শিশুকে মায়ের দুধ খাওয়ানো : টেকসই উন্নয়নের চাবিকাঠি।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী শুধুমাত্র মায়ের দুধ খাওয়ানোর হার বর্তমানে ৩৭ শতাংশ, যা সহস্রাব্দ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ২১৬ সালের মদ্যে ৫০ শতাংশ। বিডিএইচএস (বাংলাদেশ ডেমোগ্রাফিক অ্যান্ড হেলথ সার্ভে) এর তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশ ২০১৪ সালের মধ্যে ৫৫ শতাংশ অর্জন করেছে। কিন্তু আমাদের লক্ষ্য শতভাগ অর্জন করা।’

আগামী ২ আগস্ট সকাল ১১টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহের উদ্বোধন করা হবে। এতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম উপস্থিত থাকবেন। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়- সপ্তাহে মোবাইলে বার্তা পাঠানো, সাক্ষাৎকার, টকশো, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা ও সেমিনার হবে।

মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলাদা আলাদা বাণী দিয়েছেন।
 

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি