২৯ অগাস্ট, ২০১৮ ০৯:৫১ এএম

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এত বেপরোয়া আচরণ কেন করছে: বিএমএ মহাসচিব

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এত বেপরোয়া আচরণ কেন করছে: বিএমএ মহাসচিব

‘স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় এত বেপরোয়া আচরণ কেন করছে? পরিকল্পিত ভাবে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য ওখানে কি কেউ কাজ করছে? একের পর এক ওলট পালট আদেশে চিকিৎসকদের ক্ষেপিয়ে তোলার জন্য কি কেউ ক্রমাগতভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে?’এসব কথা বলেছেন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল।

ডা. এহতেশামুল হক ফেসবুক স্ট্যাটাসে কিছু প্রশ্ন তুলে বলেছেন-

১. শূন্য পদের অতিরিক্ত চিকিৎসককে ওএসডি করে একদিকে ওএসডি নীতিমালার লংঘন, অন্যদিকে গ্রামীন অবকাঠামোয় চিকিৎসকের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অস্থিরতা তৈরি করা, 
২. ট্রেনিং শেষ না হওয়ার পূবেই ডেপুটেশন আদেশ বাতিল করা, 
৩. সকল বিষয়ে না দিয়ে মনগড়া কিছু বিষয়ে ডেপুটেশন দেওয়া, 
৪. নীতিমালা না মেনে হঠাৎ করে কোন কোন উপজেলার প্রায় সকল চিকিৎসককে (মহিলা চিকিৎসকসহ) বিভাগের বাইরে বদলি করা, 
৫. বিভাগীয় তদন্ত ছাড়াই ইচ্ছামত সিনিয়র চিকিৎসকদের দোষী বানিয়ে ওএসডি/বদলি করা (মন্ত্রনালয়ের ক্ষমতাসীনদের ফরমায়েশ না শুনার অপরাধে), 
৬. সাস্থ্য অধিদপ্তরে গুরুত্বপূর্ণ পদে সরকারবিরোধীদের পদায়ন এবং তাদেরকে দিয়ে শোক দিবস পালন (তারা করেছেন উদযাপন) এবং সবশেষে 
৭. হঠাৎ করে ৩৬তম বিসিএসের চিকিৎসকদের চার বছর গ্রামে থাকার নীতিমালা করে শুধু তাদেরকে সংক্ষুব্দই করা হয়নি বরং আন্তঃক্যাডার বৈষম্যকে জাগিয়ে তোলা হলো, এসব কারা ও কেন করছে? 

সরকারে লুকিয়ে থাকা ভিন্ন উদ্দেশ্য হাসিলকারী কেউ, নাকি অন্য কিছু? অচিরেই এ বিষয়ে নজর দেওয়া প্রয়োজন। সাধু সাবধান!- বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে