ঢাকা      শুক্রবার ২১, সেপ্টেম্বর ২০১৮ - ৫, আশ্বিন, ১৪২৫ - হিজরী



ডা. কাওসার উদ্দিন

সহকারী সার্জন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।


ক্যালসিয়াম কড়চা

অনেক মানুষ মুড়ির মত যে ওষুধগুলো খায়, তার মধ্যে ক্যালসিয়াম (Ca) ট্যাবলেট একটি। শরীরে ক্যালসিয়ামের ভূমিকা সুবিস্তৃত।

ক্যালসিয়াম বাড়লে কমলে জটিলতার তাই শেষ নেই। এই জটিলতা ক্যালসিয়াম বাড়ার চেয়ে কমলেই বেশি। স্রষ্টা তাই এখানে একটু ব্যালেন্স করেছেন। আর সেটি হল যেসব রোগের জটিলতা বেশি সেসব রোগ তুলনামূলক কম হয়, অর্থাৎ Hypocalcaemia is much less than Hpercalcaemia!

দুধের বিজ্ঞাপন 'দুধে আছে ক্যালসিয়াম, ক্যালসিয়াম হাড় শক্ত করে!' হাড় যেহেতু শক্ত করে, সেহেতু শরীরের সব ক্যালসিয়াম হাড়েই জমা থাকে (৯৯%)! মাত্র ১% থাকে শরীরের বাকি জায়গায় প্রধাণত রক্তে। এই যে ১% তার অর্ধেকটা থাকে Albumin এর সাথে যুক্ত হয়ে (bound calcium), আর বাকিটা একা একা ঘুরে বেড়ায় (ionized calcium)! বড় ঝামেলা এই free ionized calcium কমলেই হয়, কারণ এরাই nerve conduction, muscle contraction প্রভৃতি নিয়ন্ত্রণ করে। আর হাড়ের ক্যালসিয়াম কমলে হয় Osteoporosis, Osteomalacia, Rickets প্রভৃতি।

ক্যালসিয়ামের ব্যালেন্স যারা মেইনটেইন করে তারা হলো:
- PTH (parathyroid hormone); এটি একটি life saving হরমোন। তৈরি হয় parathyroid gland-এ।
- Calcitonin; এটা আসে Thyroid gland এর Parafollicular cells থেকে।
- Vit D

> PTH bone resorption করে Bone থেকে Ca রক্তে নিয়ে আসে।

> PTH যে কাজ করে, তার উল্টোটা করে Calcitonin. অর্থাৎ রক্ত থেকে Ca হাড়ে ফিরিয়ে দেয়৷
এভাবে একটা ভারসাম্য সৃষ্টি হয়। দিনে প্রায় হাফ কেজির মত ক্যালসিয়াম এভাবে Bone to Blood আসা যাওয়া করে!

> Vit D. নামে ভিটামিন হলেও কামে সে হরমোন! এটার তৈরি শুরু হয় স্কিনে সূর্যের আলোতে। স্কিনে তৈরি হয় Cholecalciferol, তারপর তা থেকে লিভারে Calcidiol, তা থেকে ফাইনালি কিডনিতে Calcitriol (active VitD). এই ফাইনাল Vit D তৈরিতে হেল্প করে যে সে হল উপরেই ওই PTH.

অর্থাৎ PTH এখানে একটা Trophic হরমোনের মত কাজ করে, যার প্রভাবে সৃষ্টি হয় Vit D. Vit D Intestine থেকে Ca ও সাথে Po absorb করে। সাথে আবার Kidney থেকে Ca reabsorb করে, কিন্তু Po বের করে দেয়। এই দুই ঘটনা মিলে রক্তে Ca বাড়ে, আর Po কমে। রক্তে Ca কমলো না বাড়লো সেটা ডিটেক্ট করে PTH. তবে এই Ca মেইনলি ionized calcium.

Hypocalcaemia, Ca কমে কেন?
ওই যে উপরে পড়েছি, Ca প্লাজমা প্রোটিন Albumin এর সাথে যুক্ত হয়ে রক্তে ঘোরে। যদি কোন কারণে এই প্রোটিনের পরিমাণ কমে যায় তবে Ca কমে। তবে যে free ionized Ca আছে তা কিন্তু অপরিবর্তিত থাকবে।

প্রোটিন কখন কমে?
প্রোটিন কম খাওয়া (malnutrition), কম absorb হওয়া (malabsorption), লিভারে কম তৈরি হওয়া (liver disease), কিডনি দিয়ে loss হওয়া (nephrotic syndrome).

ionized Ca কখন কমে?
ধরুন কেউ ইচ্ছাকৃত (hysteria) ঘন ঘন শ্বাস নিল (hyperventilation), যার ফলে শরীরের CO2 লস হয়ে Alkalosis হবে, ফলে pH বাড়বে, Plasma protein এর প্রতি ionized Ca এর আকর্ষণ বাড়বে, এর ফলে free ionized Ca কমে যাবে। এটা অনেক মারাত্মক, এতটাই মারাত্মক হয় যে Ca কমে Tetany Hyperreflexia হতে পারে।

> Hypomagnasaemia. Mg এর কাজ PTH তৈরিতে সাহায্য করা। Mg কমলে তাই PTH ও কমে। আর Mg কমে Malabsorption এ, Alcohol পানে, diuretics ব্যবহারে, বেশি বেশি PPI গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খেলে।

> উপরে পড়লাম Diuretics Mg কমায়। Diuretics কিন্তু Ca ও কমায় তবে সেটা শুধু Loop Diuretics (Frusemide). Thiazide Diuretics কিন্তু উল্টো Ca বাড়ায়!

> Acute pancreatitis
Hypercalcaemia যেমন Pancreatitis এর একটি Cause. উল্টো করে Hypocalcaemia হল Pancreatitis এর একটা Clinical feature.

> সূর্যের আলো কম কম লাগে, তাই Vit D কম কম তৈরি হয়। ফলাফল Hypocalcaemia.

> দীর্ঘদিন ধরে কিডনি রোগ (CRF), তাই Vit D কম তৈরি হয়, কারণ আমরা জানি active Vit D কিডনিতেই তৈরি হয়। ফলাফল Hypocalcaemia.

> Hypoparathyroidism. thyroid সার্জারির সময় accidentally parathyroid গ্লান্ড ক্ষতিগ্রস্ত হয়, অথবা অন্য কোন কারণে গ্লান্ড কম কম কাজ করে। ফলাফল PTH কম, তাই Ca ও কম।

> PTH এর সেনসিটিভিটি কমে গেছে, ডেভেলপ করেছে রেজিস্ট্যান্স। তাই PTH যতই বাড়ুক Ca আর বাড়ে না। একে বলে Pesudohypoparathyroidism.

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


এডু কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এমডি ও এমএস রেসিডেন্সি কোর্সে আবেদনের জন্য জরুরি বিষয় জেনে নিন

এমডি ও এমএস রেসিডেন্সি কোর্সে আবেদনের জন্য জরুরি বিষয় জেনে নিন

মেডি ভয়েস ডেস্ক: এমডি বা এমএস রেসিডেন্সি কোর্সে আবেদনে ইচ্ছুক ডাক্তারদের মধ্যে পরীক্ষা বা…



জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর