২৭ অগাস্ট, ২০১৮ ০১:২১ পিএম
নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকগণের পদায়ন নীতিমালা

চিকিৎসকদের ৪ বছর উপজেলায় থাকা বাধ্যতামূলক

চিকিৎসকদের ৪ বছর উপজেলায় থাকা বাধ্যতামূলক

মেডিভয়েস ডেস্ক: উপজেলায় নতুন চিকিৎসকদের অন্তত ৪ বছর থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ৩৬তম বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডারে নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকগণের পদায়ন নীতিমালায়  এ বিষয়টি উল্লেখ করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। 

সোমবার চিকিৎসকগণের পদায়ন নীতিমালা-২০১৮ প্রকাশ করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। যুগ্ম সচিব মইনউদ্দিন আহমদ স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নিম্ন পর্যায়ে ৪ বছর চাকরি পর পদ শূন্যতার ভিত্তিতে চিকিৎসকগণ জেলা হাসপাতালে পদায়নের সুযোগ পাবেন। 

নীতিমালায় আরও উল্লেখ করা হয়, নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত দন্ত চিকিৎসকদের প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পদায়ন করা হবে। ৪ বছর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পদায়ন থাকার পর শূন্যতার ভিত্তিতে দন্ত চিকিৎসকগণকে জেলা পর্যায়ের হাসপাতালে পদায়ন করা যেতে পারে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও উল্লেখ করা হয়, যে সব বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) এর আওতাধীন জেলাসমূহে চিকিৎসক সংকট বেশি রয়েছে সে সব বিভাগে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চিকিৎসক পদায়ন করা হবে।

নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়, নবনিয়োগের ক্ষেত্রে শূন্য পদ পূরণের জন্য প্রথমে পার্বত্য জেলা, দ্বীপাঞ্চল ও প্রত্যন্ত অঞ্চলে পদায়নের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। 

পার্বত্য জেলা, দ্বীপাঞ্চল এবং দূর্গম উপজেলা বা তদূনিম্ন পর্যায়ে পদায়নকৃত চিকিৎসকগণকে ২ বছর দায়িত্বকাল অতিক্রম হবার পর উক্ত কর্মস্থল হতে প্রত্যাহারপূর্বক সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) অপেক্ষাকৃত সুবিধাজনক স্থানে পদায়ন করবেন। একই সাথে কোন চিকিৎসক প্রত্যাহৃত হবার পূর্বে পার্বত্য জেলা, দ্বীপাঞ্চল এবং দূর্গম উপজেলা পর্যায়ে অন্য চিকিৎসকগণের পদায়ন নিশ্চিত করবেন।

নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের বদলি ও উচ্চতর ডিগ্রি
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৪ বছর চাকরি পর পদ শূন্যতার ভিত্তিতে জেলা হাসপাতালে চিকিৎসকগণ পদায়নের সুযোগ পাবেন। নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত দন্ত চিকিৎসকগনও এই নীতিমালার অর্ন্তভূক্ত হবেন।

উপজেলা বা তদূনিম্ন পর্যায়ে ৪ বছর চাকরি করার পর নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকগণ এমডি/এমএস/এফসিপিএস/এমপিএইচ/ডিপ্লোমা বা সমমানের উচ্চতর কোর্স করার সুযোগ পাবেন। তবে প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী মোট পদের ১০% চিকিৎসকের অধিক উচ্চতর ডিগ্রি করার জন্য দীর্ঘদিন ছুটি দেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, এর আগে উপজেলায় চিকিৎসকদের জন্যে ২ বছর থাকা বাধ্যতামূলক ছিল। ২ বছর পর উপজেলায় নিয়োগকৃত নতুন চিকিৎসকরা জেলা সদর কিংবা মেডিকেল কলেজে বদলির অথবা উচ্চতর ডিগ্রির জন্যে ছুটি পেতেন। এছাড়া পার্বত্য অঞ্চল এবং দুর্গম এলাকায় নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকগন এর আগে ১ বছর পর উচ্চতর হাসপাতালে বদলির অথবা উচ্চতর ডিগ্রির জন্যে ছুটি পেতেন। নতুন নিয়মে পার্বত্য অঞ্চল এবং দুর্গম এলাকায় বাধ্যতামূলকভাবে ২ বছর সেবা দিতে হবে।


যেসব বিশেষজ্ঞদের মেডিকেল কলেজে পদায়ন করা হবে
এদিকে নীতিমালায় আরও উল্লেখ করা হয়, এনাটমি, ফিজিওলজি, ফার্মাকোলজি, বায়োকেমিস্ট্রি, মাইক্রোবায়োলজি, প্যাথলজি, কমিউনিটি মেডিসিন ও ফরেনসিক মেডিসিন বিষয়ে এমএস/এমফিল/সমমানের ডিগ্রি অর্জনকারী নবনিযুক্ত চিকিৎসককে মেডিকেল কলেজে পদায়ন করা যেতে পারে।

বর্ণিত বিষয়সমূহ ব্যতীত অন্য কোন বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জনকারীগণ এ শর্তের সুবিধা প্রাপ্ত হবেন না। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পদ খালি না থাকলে অন্য বিষয়ের পদের বিপরীতে এ ধরনের পদায়ন করা যাবে না।

এ্যানেসথেসিয়া বিশেষজ্ঞদের সুবিধা
নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়, এ্যানেসথেসিয়া বিষয়ে এমডি/এফসিপিএসডিএ সমমানের ডিগ্রি অথবা ন্যুনতম এক বছরের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চিকিৎকগণকে উপজেলা পর্যায়ের নিম্নে পদায়ন করা যাবে না।

এছাড়াও নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়, স্বামী-স্ত্রী সরকারি চাকরিজীবী হলে বিধি মোতাবেক একই কর্মস্থলে পদায়নের বিষয় বিবেচনা করা যেতে পারে।

►৩৬তম বিসিএস ক্যাডারে নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের পদায়ন নীতিমালা

মেডিভয়েসকে বিশেষ সাক্ষাৎকারে পরিচালক

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শতাধিক করোনা বেড ফাঁকা

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি
জাতীয় ওষুধনীতি-২০১৬’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন

নিবন্ধনহীন ওষুধ লিখলে চিকিৎসকের শাস্তি