ঢাকা শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৪১ মিনিট আগে
ডা. ফাহিম উদ্দিন

ডা. ফাহিম উদ্দিন

ইন্টার্ন চিকিৎসক

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।


১১ অগাস্ট, ২০১৮ ১২:৫৮

এদেশে গরিব হয়ে জন্ম নেয়াটাই একটা পাপ! 

এদেশে গরিব হয়ে জন্ম নেয়াটাই একটা পাপ! 

কিছুদিন আগে হসপিটালে একজন রোগী বাইক এক্সিডেন্ট করে ভর্তি হয়েছিলেন। হেড ইন্জুরি, রিব্স ফ্র্যাকচার ও ফিমার ফ্র্যাকচার। দু দিন ধরে অজ্ঞান। রোগীর লোকের পক্ষে একটা আল্ট্রা/এক্স-রে করানোও সম্ভব হয়নি। 

রোগীর ছেলে ঢাকায় একজনের বাসায় কাজ করে। ছেলেটা ঢাকা থেকে আর্জেন্ট এসে তার বাবার পাশে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে ছিল। তার বাবাকে বাঁচাতে অনেক টাকার প্রয়োজন কিন্তু সেই সামর্থ্য কই? তার পরদিন সকালেই তার বাবা (রোগী) মারা যায়। শুধুমাত্র টাকার অভাবে তার বাবাকে বাঁচানোর কোনো চেষ্টাই করতে পারেনি ছেলেটা। 

দুই.
আরেকজন রোগী অনেকদিন ধরে হসপিটালে ভর্তি Fistula in Ano নিয়ে। সরকারি হসপিটালে অপারেশনের যেই সিরিয়াল, বেচারার পক্ষে অপেক্ষা করা খুব কঠিন হয়ে পড়েছে। কারণ তিনি অল্প বেতনের একটি বেসরকারি চাকরি করেন।

অফিস থেকে অপারেশন করাবেন বলে কয়দিন ছুটি নিয়ে আসলেন। কিন্তু অপারেশনের যে সিরিয়াল, অপেক্ষা করতে করতে তাঁর চাকরিটাই হারালেন! প্রতিদিন এসে রিকুয়েস্ট করেন, খুব খারাপ লাগে। 

তিন.
আরেকটা বাচ্চার পিঠে দু বছর আগে খেঁজুর কাটা ঢুকে যায় দুর্ঘটনাবশত। এখন সেখানে সাইনাস ফরমেশন হয়ে গেছে। তার বাবা একজন দিনমজুর। অনেক দিন হল হসপিটালে ভর্তি।

স্বাভাবিক ভাবেই সংসারের আয় উপার্জন আপাতত বন্ধ। মানুষের সাহায্য নিয়ে কিছু টাকা জোগাড় করে বাচ্চার অপারেশন করাতে এসেছেন। কিন্তু সিরিয়াল তো আর পাচ্ছেন না। দেখা হলেই খুবই অনুনয় বিনয় করে অনুরোধ করেন। খুবই খারাপ লাগে। কিন্তু কিছু করার নেই। হসপিটালে বেডের চেয়ে তিন/চার গুণ অতিরিক্ত রোগী ভর্তি থাকেন, যাঁদের প্রায় ৮০% ই গরিব। 

আসলে উনারা সবাই দেশটাকে লুটে পুটে খায়। একেক সময় একেক পক্ষের আঙুল ফুলে কলা গাছ হয়ে যায়। কিন্তু এই অসহায় গরিব মানুষগুলো যেমনটা ছিল ঠিক তেমনটাই থেকে যায়, এঁদের ভাগ্য কখনো পরিবর্তন হয় না।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত