অধ্যাপক ডা. আব্দুল ওহাব মিনার

অধ্যাপক ডা. আব্দুল ওহাব মিনার

মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, সাহিত্যিক


০১ অগাস্ট, ২০১৮ ০৪:৩৩ পিএম

যেমন বাবা তেমন ছেলে

যেমন বাবা তেমন ছেলে

আম্মুর মাঝবয়সী একটা ছবিসহ দেয়া গতকালের স্ট্যাটাসটা পরিচিত মহলে খুব প্রশংসা কুড়িয়েছে৷একজন উঠতি বয়সের কলেজ পড়ুয়া বালিকার আম্মুকে নিয়ে আমাদের কৃষ্টিতে যেমন আবেগ থাকে চৈতির আবেগ তেমনি উথলে পড়েছে সন্দেহ নেই৷চাচা ফুফুরা কেউ মন্তব্যে প্রশংসা করেছেন যেমন মা তেমন মেয়ে, কেউ লিখেছেন মাকেও ছাড়িয়ে গেছে৷সোহেলের চোখ এড়ায়নি এই স্টেটাস৷ছোট বোনের এমন লেখালেখির হাত দেখে তার ভালোই লাগে৷

লেখাটা যখন সে পড়েছে খেয়াল করেনি৷কানাডা থেকে খালামনির মন্তব্য পড়ে তার টনক নড়লো৷দ্বিতীয় ছবিটা ছিল কাজের বুয়ার সাথে যেখানে মিসেস ফরিদা শামস তার অসুস্থতায়পরম যত্নে তাকে আম খাইয়ে দিচ্ছেন৷এখানে চৈতি আম্মুকে ফেরেশতা বানিয়ে ফেলেছে প্রায়৷সোহেলের এখানেই আপত্তি৷

- ভাইয়া বল কী বলবে,ডাকছ কেন?
- বস,ছটফট করছিস কেন?

আম্মুকে নিয়ে দেয়া তোর স্ট্যাটাসটা খুব ভাল হয়েছে৷অনেকেই প্রশংসা করেছেন৷ 
- আসলেই আমরা লাকি৷এমন আম্মু পাওয়া ভার৷
- হুম লাকি৷কী কী কারণে লাকি বলতো?
- আমাদের প্রতি তার দায়িত্বের কথা,দাদা বাড়ির প্রতি তার কর্তব্যবোধ আমাকে প্রীত করেছে৷সবচেয়ে ভালো লেগেছে মানুষের প্রতি তার মমত্ববোধ এবং ভালবাসা দেখে৷এগুলোতো ছোট বেলা থেকেই দেখে আসছি৷
- আত্মীয়স্বজনদের জন্য কিছু করাটা পারিবারিক দায়িত্ব৷আমরা আম্মুর সন্তান তার নিজের তাগিদেই তিনি আমাদের পরিচর্যা করেন যা অন্য আর দশ জন করে৷

এখানে বারতি কী করলেন?কাজের মানুষকে তার অসুস্থতায় সেবা প্রদান 
আহা মরি কিছু না৷ 

বিরক্ত হয়ে চৈতি বলে,
- ভাইয়া কী বললে আম্মুকে নিয়ে?
- ধুর চিৎকার করিস না,শোন৷ 

এটা কী স্বাভাবিক যে একজন মানুষ একটা পরিবারে সব সময়ই পরে খাবার খাবে?তার ক্ষুধা লাগলো কী লাগলো না কেউ জানতে চাইলো না৷তার শখ আহ্লাদ কিছু থাকতে নেই৷তাদের কোন আইডেনডিটি আছে?সে কী টিভির চ্যানেল ঘুরাতে পারে?পারে না৷এটা হয় না,একজন সুস্থ সবল সক্ষম মানুষের কাজ কেন অন্যজন করে দেবে!খেটে খাওয়া মানুষগুলোর কথা কী ভাবিস? বস্তিবাসী,গ্রামের মানুষ কিভাবে বাঁচে কোনদিন নিজেকে প্রশ্ন করছিস?

আমরা পরিবারের সবাই সুস্থ৷নিজেদের কাজ নিজেরাই করতে পারি- তা কী করি? আব্বু আম্মু কাজ করুক,আমরা করি৷আম্মু ওকে বিদায় দিয়ে দিক৷তখন আমি বলবো আমার মা এক্সেপশনাল৷ তার আগে না৷

তুমি এখন যেতে পার চৈতি,যাও৷

- তুমি অপমান করলে কেন? 
- আমার বোনকে কী আমি অপমান করতে পারি?পারি না৷আম্মুর দেখানো কাজটাও অনেক ভাল৷পরিচারিকার এমন সেবার কাজটাই এই সমাজে অনুপস্থিত,তাই এটা অবুঝ মনে দাগ কাটে৷এই বুয়া শ্রেণীর লোকদের মিনিমাম মানবিক মর্যাদা নেই৷সবার জন্য কাজ দরকার,থাকার ঘর,পড়াশোনার জন্য পরিমিত সুযোগ,হাসপাতালে চিকিৎসা সুবিধা থাকা বাঞ্চনীয়৷তা কী আছে?

এরা আমাদের মতো স্বচ্ছল লোকদের অনুকম্পায় চলে৷এটা কোন জীবন?

মুখ মলিন করলো,বিরক্ত হল চৈতি৷রাগে ক্ষোভে সে কাঁপছে৷
রুম থেকে বিদায় নিল৷ 
এরমধ্যে বাবাকে সে বিষয়টা বলেছে৷

রাতে খাবার টেবিলে প্রসঙ্গটা উঠতেই সোহেল বুঝে নেয় ঝামেলা একটা চৈতি বাধিয়ে দিয়েছে৷
- কি হয়েছে স্ট্যাটাসে?
- কিছুতো হয়নি৷
- আমি বুঝতে পারি তোমার কথাগুলো কিন্তু আমরাতো একটা সমাজের অংশ৷ইচ্ছে করলেই সব করা যায় না৷আমি যদি আমার সব স্থাবর অস্থাবর সম্পদ ওয়াকফ করে দেই তোমরাই হাউকাউ লাগিয়ে দেবে৷আমি যদি বলি শুধু বেতন দিয়ে চলবো,তোমার মামা-চাচারা আমাকে ও পুরো পরিবারকে পাগল ঠাহর করবে৷তুমি বিয়ের পর কাজের লোক রেখো না,অনেকেই সেটা ফল করবে৷
তোমার আম্মু যা করছে বা আমরা যতটুকু করি এটা ধরে রাখাই এখন বড় কাজ৷

- কুরআন হাদীছে যা পড়ি ওসব তত্ত্ব৷আমল করা দোষ? "নিজের জন্য যা চাই ওপরের জন্য যদি তা না চাই... সে রাসূলের স. দলভুক্ত না..." কত বড় তাগিদ!কী সেই অনুভূতি!কী বাবা?
- না,দোষ না৷অতীব প্রয়োজন৷একবারে হবে না, গ্রাডুয়েলি হবে৷

অনুভূতি পুষে রাখ,সবকিছুই হবে টেক টাইম৷

বাবা তার চেয়ারের পিছনে গিয়ে দাঁড়ায়৷দুই গাল হাতে ধরে আদর করে,নুয়ে মাথায় চুমু দিতেই দুফোটা অশ্রু ঘাড়ে পড়লে তার উষ্ণতা টের পায় সোহেল৷

বাবা ফিসফিস করে বলে"তোমার মতো সন্তান পেয়ে আমি গর্বিত,আল্লাহ তোমায় অনেক বড় করুন৷"

রান্না ঘর ডাইনিং করতে করতেই মিসেস ফরিদা সব খেয়াল করে৷তার মনে আনন্দ আর ধরে না৷

সব অভিযোগ সব অভিমান ভুলে চৈতি ভাবে- ভাইয়ার মতো তার চিন্তাটা এতো রিচ না কেন?ভাইয়াকে নিয়ে গর্বিত চৈতির প্রশান্তি তার চেহারায় ফুটে উঠলো৷

চৈতি বলে উঠলো:যেমন বাবা তেমন ছেলে৷

ডাইনিংয়ের চার সদস্যই হেসে উঠলো৷

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা
পিতাকে নিয়ে ছেলে সাদি আব্দুল্লাহ’র আবেগঘন লেখা

তুমি সবার প্রফেসর আবদুল্লাহ স্যার, আমার চির লোভহীন, চির সাধারণ বাবা

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 
কিডনি পাথরের ঝুঁকি বাড়ায় নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবন 

বেশিদিন ওমিপ্রাজল খেলে হাড় ক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে 

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না
জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের সিসিউতে ভয়ানক কয়েক ঘন্টা

ডাক্তার-নার্সদের অক্লান্ত পরিশ্রমের কথা মিডিয়ায় আসে না