ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৯ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৬ ঘন্টা আগে
২৮ জুলাই, ২০১৮ ০১:৩৫

প্রতি দশ জনে ৯ জনই জানেন না তারা হেপাটাইটিসে আক্রান্ত

প্রতি দশ জনে ৯ জনই জানেন না তারা হেপাটাইটিসে আক্রান্ত

মেডিভয়েস ডেস্ক: হেপাটাইটিসে আক্রান্ত রোগীর প্রতি ১০ জনের ৯ জনই জানেন না যে তারা এ ভাইরাসের বাহক। সময়মতো এ রোগ ধরা না পড়লে আক্রান্তদের অনেকেরই লিভার সিরোসিস বা লিভার ফেইলিওর হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, ভাইরাল হেপাটাইটিস-বি এবং সি বর্তমান বিশ্বের অন্যতম প্রধান স্বাস্থ্য সমস্যা।

বিশ্বব্যাপী ৩২৫ মিলিয়ন মানুষ এ রোগের বাহক। ভাইরাল হেপাটাইটিসই লিভার ক্যান্সারের মূল কারণ। যে রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রতি বছর ১০ লাখ ৩৪ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, হেপাটাইটিস-বি এবং সি এমন একটি ভাইরাল ইনফেকশন যা রোগীর শরীরে দীর্ঘস্থায়ী সংক্রমিত হলেও কোনো লক্ষণ প্রকাশ করে না। কখনও কখনও ১ বছর বা ১ দশক পর্যন্ত এ ভাইরাস শরীরের ভেতরে রোগ বিস্তার করতে পারে। বিশ্বব্যাপী ৬০ ভাগ লিভার ক্যান্সার রোগীর প্রধান কারণ হেপাটাইটিস-বি এবং সি’র সংক্রমণ।

হেপাটাইটিস প্রতিরোধ, চিকিৎসায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বেশ কিছু সুপারিশ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে- হেপাটাইটিস সেবাগুলোর সর্বোত্তম চর্চা প্রদর্শন এবং সর্বজনীন স্বাস্থ্য কভারেজ উন্নীত করা। ভাইরাল হেপাটাইটিস বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী একযোগে কাজ করা এবং এজন্য তহবিল গঠন। বাংলাদেশে প্রায় ৫ থেকে ৬ কোটি মানুষ হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের বাহক। এদের মধ্যে প্রায় ৮০ লাখ থেকে ১ কোটি লোক ক্রনিক হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসে আক্রান্ত।

তাদের বেশিরভাগই জীবনের কোনো একপর্যায়ে লিভার সিরোসিস বা লিভার ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগের ঝুঁকিতে আছেন।

বছরে ২৫ হাজার লোক হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসজনিত লিভার সিরোসিস বা লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, হেপাটাইটিস-বি রোগীরা ভাইরাসটির রিজার্ভার হিসেবে কাজ করেন। ফলে তাদের থেকে যে কোনো সুস্থ লোকের এ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

বাংলাদেশে প্রতিদিনই অসংখ্য মানুষ নতুন করে হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসে সংক্রমিত হচ্ছেন। মহিলা, গর্ভবতী নারী এবং নবজাতক শিশুদের বেলায় হেপাটাইটিস-বি সংক্রমণের ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি।

জানা গেছে, বাংলাদেশে প্রায় ৮০ লাখ থেকে ১ কোটি মানুষ হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসের সারফেস এন্টিজেন পজিটিভ।যার কারণে তারা মধ্যপ্রাচ্যসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে, এমনকি নিজ দেশেও চাকরির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন।

এছাড়া বছরে প্রায় ২৫ হাজার লোক হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসজনিত লিভার সিরোসিস অথবা লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসে আক্রান্ত এদেশের ১০ শতাংশ লোকের চিকিৎসা ব্যয় প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকা।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের লিভার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব বলেন, হেপাটাইটিস-বি ভাইরাসে আক্রান্ত প্রায় ৭০ ভাগ রোগী জন্ডিসে আক্রান্ত নাও হতে পারেন। শতকরা ১০ ভাগ প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি আর প্রায় ৯০ ভাগ শিশু যারা এ ভাইরাসে আক্রান্ত হন, তাদের লিভারে স্থায়ী ইনফেকশন দেখা দেয়। যাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় ক্রনিক হেপাটাইটিস-বি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। যারা এইচবিএসএজি (ঐইংঅম) পজিটিভ হিসেবে পরিচিত।

তিনি বলেন, এ ধরনের রোগীদের প্রায়ই কোনো লক্ষণ থাকে না। এরা কখনও কখনও পেটের ডান পাশে ওপরের দিকে ব্যথা, দুর্বলতা কিংবা ক্ষুধামন্দার কথা বলে থাকেন। তবে এসব লক্ষণ অনেক রোগের ক্ষেত্রে দেখা যায়। তাই পরীক্ষা ছাড়া হেপাটাইটিস নির্ণয় করা সম্ভব নয়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, চতুর্থ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার অধীনে বাংলাদেশ সরকার ভাইরাল হেপাটাইটিস প্রতিরোধ ও নির্মুলের উদ্দেশ্যে একটি অপারেশনাল প্ল্যান অনুমোদন করেছে। এ কর্মসূচির অধীনে এরই মধ্যে সারা দেশে প্রায় চার হাজার সরকারি চিকিৎসককে ভাইরাল হেপাটাইটিস প্রতিরোধ ও চিকিৎসা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে, প্রায় শতাধিক হেপাটাইটিস-সি আক্রান্ত রোগীর প্রত্যেককে লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ওষুধ বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়েছে। হেপাটাইটিস-বি’র বিরুদ্ধে এডাল্ট ভ্যাকসিনেশন পাইলটিং করা হয়েছে।

এছাড়াও এ অপারেশন প্ল্যানের অধীনে হেপাটাইটিস ভাইরাসগুলো নির্মূলে কর্মকৌশল প্রণয়নের কাজ এগিয়ে চলেছে। লিভারের রোগীদের জন্য দেশেই সর্বাধুনিক চিকিৎসা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সরকার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব লিভার ডিজিজেজ অ্যান্ড রিসার্চ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে এবং প্রধানমন্ত্রী ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়েছেন।

হেপাটাইটিস-বি’র নতুন ওষুধ ন্যাসভ্যাক’র রেসিপি এরই মধ্যে এদেশের লিভার বিশেষজ্ঞদের উদ্ভাবিত প্রথম ওষুধ হিসেবে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের অনুমোদন লাভ করেছে। আমাদের অঞ্চলের কোনো দেশে নিজস্ব উদ্ভাবিত ওষুধ অনুমোদনের ঘটনা এটাই প্রথম। ওষুধটি এরই মধ্যে কিউবা, নিকারাগুয়া, ইকুয়েডর, এঙ্গোলা ও বেলারুশে নিবন্ধিত হয়েছে।

বিশ্বের অন্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নানা আয়োজনে বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস পালিত হচ্ছে। দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মঙ্গোলিয়ার উলানবাটর বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস ২০১৮ উদযাপনের একটি ধারাবাহিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

দিবসটি উপলক্ষে অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য স্টাডি অব লিভার ডিজিজ আজ (শনিবার) বিকাল সাড়ে ৪টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে সরকারি সচেতনতামূলক পোস্টার প্রদর্শন, রক্তদান ইত্যাদি কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

বিশ্ব হেপাটাইটিস দিবস উপলক্ষে শুক্রবার এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার সরকার হেপাটাইটিস-বি এবং সি ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিরাময়ে বিভিন্নমুখী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

দেশের লিভার বিশেষজ্ঞরা লিভার রোগে আক্রান্ত রোগীদের আধুনিক চিকিৎসাসেবার পাশাপাশি হেপাটাইটিস-বি ও সি ভাইরাস প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন।

আরও পড়ুন-

►আক্রান্ত ১ কোটির ৯০ লাখই শনাক্তের বাইরে

►প্রতি ৩ মিনিটে একজন কিশোরী এইচআইভিতে আক্রান্ত হয়

►হেপাটাইটিস বি ও সি নির্মূলে কাজ করছে সরকার

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত