ঢাকা      বুধবার ১৮, সেপ্টেম্বর ২০১৯ - ৩, আশ্বিন, ১৪২৬ - হিজরী



ডা. ছাবিকুন নাহার

মেডিকেল অফিসার, ঢাকা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল


কবিতা

নিজের জন্য বাঁচি

খুব কাজল পরতে ভালোবাসতাম, চোখের জলসীমায় অতন্দ্র প্রহরীর মতো। 
তুমি বলতে, বেশ লাগে!
সইল না। 
ডাক্তার বললেন, কাজলে আর কাজ নেই; এলার্জি বড় মারাত্মক!

গলার পাদদেশে সূক্ষ্ম সোনার সূতো, ছোট্ট লকেটে ছিল প্রগাঢ় বন্ধুতা। 
দু’জন মিলে মানবীর সুখের হিসেবগুলো রাখত, দুঃখেরও। 
তারাও আজ নির্বাসনে।

রিনিঝিনি ঝংকার খুব ভালো লাগত। 
টুংটাং ধ্বনি একটু ছুঁয়ে দিলে, 
না দিলেও। 
হাত ভর্তি চুড়িতে অরুচি আজকাল। যখন শুনেছি, সবই শৃঙ্খলের বিবর্তন।

যে পথে যেতাম, কিছুটা নূপুর নিক্বণ এখনো লেগে আছে হয়তো। 
আলতো পায়ে সুরের বিহ্বল বিচরণ। 
সে এক অদ্ভূত ধ্বনি, মনকে করে বিবশ। 
তবুও সে তো বেড়িই ছিল নারীর।

শৈল্পিক সৌন্দর্যের গায়ে নিপীড়ন, খুব গোপনে খোদাই করা। যুগে যুগে তুমি সয়েছ অনেক। 
বিবর্তনবাদ তোমার বেড়িকে করেছে মনোরম নেকলেস। 
হীরে বসেছে তাতে, পান্না চুনিও।

কী দিয়ে আজ সাজি বলতো? 
সবটাতেই ইতিহাস দেয় হানা। 
চুপিচুপি বলে, সব মিথ্যে আয়োজন মেয়ে, সবটাতেই তোমার ঠকার গল্প আছে লেখা। যেমন আছো তেমনি থাকো, কাজ কী নকলে?

যে থাকার সে থাকবে, যে ভালোবাসার সে বাসবে।
হারিয়ে ফেলার ভয়ে নিজেকে করো না পন্য, 
বরং হারিয়ে যেতে দাও, কান্না লুকাও।
হাহাকার দেরাজে রাখো, নিজের জন্য বাঁচি চলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন:

 


পাঠক কর্নার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

এক্সাম ফোবিয়া ও ডিপ্রেশন: মুক্তির সহজ সমাধান

এক্সাম ফোবিয়া ও ডিপ্রেশন: মুক্তির সহজ সমাধান

প্রশ্ন: স্যার আমি মেডিকেলের ৩য় বর্ষের ছাত্রী। মেডিকেলে ইতিমধ্যেই ১ বছর লস…

ডাক্তাররা রোগের চিকিৎসা করে, মৃত্যুর নয়

ডাক্তাররা রোগের চিকিৎসা করে, মৃত্যুর নয়

: ব্যাটসম্যানদের ভুলে আজ খেলাটা চলে গেল! : ভুল বলছেন কেন? বল…

সন্তানের থ্যালাসেমিয়ার জন্য পিতা-মাতার অজ্ঞতাই দায়ী!

সন্তানের থ্যালাসেমিয়ার জন্য পিতা-মাতার অজ্ঞতাই দায়ী!

সিএমসি, ভেলোরে আমি যে রুমে বসে রোগী দেখছি সেখানে ইন্ডিয়ার অন্যান্য রাজ্যের…

আনিসের প্রত্যাবর্তন 

আনিসের প্রত্যাবর্তন 

রাস্তায় একজনের মুখে সরাসরি সিগারেটের ধোঁয়া ছেড়ে দিলো আনিস। আচমকা এ আচরণে…













জনপ্রিয় বিষয় সমূহ:

দুর্যোগ অধ্যাপক সায়েন্টিস্ট রিভিউ সাক্ষাৎকার মানসিক স্বাস্থ্য মেধাবী নিউরন বিএসএমএমইউ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঢামেক গবেষণা ফার্মাসিউটিক্যালস স্বাস্থ্য অধিদপ্তর