ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ৮ কার্তিক ১৪২৬,    আপডেট ৬ ঘন্টা আগে
১৮ জুলাই, ২০১৮ ০১:১০

প্রসূতি মায়েদের জন্য সব হাসপাতালে বিশেষ অ্যাম্বুলেন্স

প্রসূতি মায়েদের জন্য সব হাসপাতালে বিশেষ অ্যাম্বুলেন্স

মেডিভয়েস ডেস্ক: প্রসূতি মায়েদের জন্য দেশের সব সরকারি হাসপাতালে বিশেষ অ্যাম্বুলেন্স দেয়ার ব্যবস্থা করছে সরকার।  প্রাথমিক পর্যায়ে এমসিআরএএইচ-অপরেশনাল প্ল্যানের আওতায় ৫টি জেলায় এসব অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স প্রাপ্ত জেলাগুলো হলো- গোপালগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, পটুয়াখালী, চাঁদপুর ও কুমিল্লা।

মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) রাজধানীর পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের বেজমেন্টে আয়োজিত অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ৫টি অ্যাম্বুলেন্সের প্রতীকী চাবি ৫ জেলার পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালকের কাছে হস্তান্তর করেন। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এসব অ্যাম্বুলেন্স প্রসূতি মায়েদের জন্য দেওয়া হচ্ছে। তাদের প্রয়োজনেই যেন এগুলো ব্যবহার হয়, সেটি নিশ্চিত করতে হবে। পর্যায়ক্রমে দেশের সব জায়গায় অ্যাম্বুলেন্স দেওয়া হবে।’

এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের সঠিক ব্যবহার করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘নিজের সম্পদের মতো সরকারি অ্যাম্বুলেন্সের যত্ন নিতে হবে। সরকারি অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে যেন পিকনিক করা না হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।’  

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘একটা সময় ছিল, ফতোয়াবাজরা জন্ম নিয়ন্ত্রণে বাধা দিতো। এখন সবাই বুঝে, ছোট পরিবার সুখী পরিবার। তবে জন্ম নিয়ন্ত্রণ মানে এই নয়, যে জনসংখ্যা অতি নিয়ন্ত্রিত পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে। তাহলে আবার দেশে বৃদ্ধ লোক বাড়বে কিন্তু কাজের লোক থাকবে না।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় আমরা অনেক এগিয়েছি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে এটি প্রচার করা হচ্ছে। ১৯৭২ সালে যেখানে আমাদের প্রয়োজনের ৯৮ ভাগ ওষুধ আমদানি করতে হতো, বর্তমানে শতাধিক দেশে ওষুধ রফতানি হচ্ছে। তারপরও আমাদের ব্যর্থতা আছে, সীমাবদ্ধতা আছে। আমরা ডাক্তারদের গ্রামে রাখতে পারিনি। অথচ গ্রামে সব ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে।’

এ সময় জানানো হয়, দেশের ২৯’শ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে স্বাভাবিক প্রসব বেড়েছে। তবে অ্যানেথেসিস্টের অভাবে ৮টি কেন্দ্রে প্রসব সেবা বন্ধ রয়েছে। একটা সময় পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ থেকে জনসাধারণ পিল ও কনডম সংগ্রহ করলেও বর্তমানে ৬০ ভাগ মানুষ দোকান থেকে কিনেই এগুলো ব্যবহার করছে।

  এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত